আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > হলি আর্টিজান হামলায় জড়িত জেএমবি কমান্ডার আটক

হলি আর্টিজান হামলায় জড়িত জেএমবি কমান্ডার আটক

হলি আর্টিজান হামলায় জড়িত জেএমবি কমান্ডার আটক

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক : রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারি অ্যান্ড রেস্তোরাঁয় হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী জঙ্গি নেতা মাহফুজ সোহেলকে আটক করেছে পুলিশ। চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ থেকে তিন সহযোগীসহ তাকে আটক করা হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহাবুব আলম জানান, সোহেল মাহফুজ নব্য জেএমবির উত্তরাঞ্চলীয় কমান্ডারের দায়্ত্বি পালন করছিলেন।

গ্রেফতারকৃত বাকি তিন সদস্য হলো- নব্য জেএমবির আইটি স্পেশালিস্ট হাফিজুর রহমান হাফিজ, অস্ত্র সরবরাহকারী জুয়েল এবং রাজশাহী, চাঁপাই ও নাটোরের কো-অর্ডিনেটর জামাল।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘শিবগঞ্জের একটি আমবাগানে টঙ ঘরে নব্য জেএমবির সদস্যরা বৈঠক করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার রাতে সেখানে অভিযান চালিয়ে জেএমবির কমান্ডার সোহেল মাহফুজসহ চার জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘সোহেল মাহফুজ নব্য জেএমবির শীর্ষ পর্যায়ের নেতা। অনেকদিন ধরেই তাকে আমরা খুঁজছি। এর আগে একাধিক অভিযানে আইনের চোখে ফাঁকি দিয়ে সে বেরিয়ে যায়।

পুলিশ সুপার বলেন, ‘সোহেল মাহফুজ যেহেতু গুলশান হামলার সঙ্গে জড়িত তাই তাকে ঢাকায় কাউন্টার টেরোরিজমের কাছে পাঠানো হয়েছে। আর বাকি তিনজন চাঁপাইয়ের একাধক মামলার আসামি,   তাই তাদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে।’

জানা যায়, গুলশান হামলার মামলার তদন্ত করতে গিয়ে অস্ত্র ও গ্রেনেড সরবরাহকারী হিসেবে এই সোহেল মাহফুজের নাম আসে। এমনকি এই মামলার অন্যতম আসামি জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধি আদালতে দেওয়া তার জবানবন্দিতে জানিয়েছিল, শেওড়াপাড়ার আস্তানায় বসে গুলশান হামলায় ব্যবহৃত গ্রেনেডগুলি তৈরি  করা হয়েছিল।

ঢাকা কাউন্টার টেরোরিজমের উপ-কমিশনার মহিবুল ইসলাম খান বলেন, ‘সোহেল মাহফুজ গুলশান হামলার পরিকল্পনার সঙ্গে যুক্ত এবং অস্ত্র ও গ্রেনেড সরবরাহকারী। তাকে ঢাকায় আনা হচ্ছে। আমরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে বিস্তারিত তথ্য উদঘাটন করবো।’

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে নারকীয় জঙ্গি হামলায় দেশি-বিদেশি ২০ নাগরিক ও দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়।

এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে