আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > হলি আর্টিজান জঙ্গিদের আন্তর্জাতিক যোগাযোগ

হলি আর্টিজান জঙ্গিদের আন্তর্জাতিক যোগাযোগ

হলি আর্টিজান জঙ্গিদের আন্তর্জাতিক যোগাযোগ

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক: গুলশানের হলি আর্টিজান রেঁস্তোরায় জঙ্গি হামলার মূল ভূমিকায় কারা ছিল? হামলা পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন অভিযানে নিহত এ জঙ্গিরাই কি হামলার পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে ছিল?

এই হামলা কি বিদেশ থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে? না-কি ইসলামি খিলাফত প্রতিষ্ঠা আর জিহাদের নামে দেশিয় জঙ্গিরাই হামলায় মূল ভূমিকা পালন করেছে?

এসব প্রশ্ন নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আর নিরাপত্তা বিশ্লেকদের রয়েছে নানা মত।

কর্মীদের চাঙ্গা করার পাশাপাশি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দৃষ্টি আকর্ষণের উদ্দেশেই হলি আর্টিজানে হামলা চালায় ধর্মভিত্তিক জঙ্গিরা। হামলাকারীদের আইএসপন্থী বললেও তাদের সাথে আন্তর্জাতিক যোগসূত্র নেই বলে বরাবরই দাবি করে আসছে পুলিশ।

তবে নিরাপত্তা বিশ্লেষক অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল আব্দুর রশীদ এ দাবির সাথে একমত নন।

হলি আর্টিজান জঙ্গিদের আন্তর্জাতিক যোগাযোগ

তবে দেশকে অস্থিতীশীল করে রাজনৈতিক পট-পরিবর্তন আর বিদেশি বিনিয়োগ বাধাগ্রস্ত করাই যে এ হামলার উদ্দেশ্য ছিল তা নিয়ে অবশ্য একমত সবাই।

নিরাপত্তা বিশ্লেষক আব্দুর রশীদ মনে করেন, বিদেশি যোগসূত্র বাদ দিলে হলি আর্টিজান হামলার নেপথ্য খলনায়কদের সামনে আনা সম্ভব হবে না। তিনি বলেন, জঙ্গি হামলার সাথে বিদেশি যোগসূত্রের বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আর এ বিষয়টি বাদ দিয়ে মামলার সুষ্ঠ তদন্ত হতে পারে না।

আব্দুর রশীদ বলেন, বাংলাদেশী জঙ্গি সংগঠনগুলোর সাথে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই’র ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ আছে। মধ্যপ্রাচ্য থেকেও জিঙ্গদের অর্থায়ন করা হয়। এমনকি পশ্চিমা দেশগুলো থেকে সদস্য সংগ্রহ করে ব্রনওয়াশ করে পাঠানো হয়। তাই আন্তর্জাতিক যোগােযাগের বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়া উচিত।

আর ইসলামের বিকৃত ও খন্ডিত ব্যাখায় উদ্বুদ্ধ হয়েই জঙ্গিরা মানুষ খুনের সাথে জড়াচ্ছে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।

বিশ্লেষক হাসানুল বান্না বলেন, জঙ্গিবাদের সাথে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই। কোরান-হাদিসের বিকৃত ও খণ্ডিত ব্যখ্যা করে কিছু যুবককে জঙ্গি বানিয়ে হত্যার মতো জঘন্য অপরধে জড়ানো হচ্ছে।

বিদেশি নাগরিকদের হত্যা করে যারা দেশকে প্রশ্নবিদ্ধ করে তাদের সাথে আর যাই হোক ধর্মের কোনো সম্পর্ক থাকতে পারে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে