আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক: মাগুরায় শেষ সময়ে ঈদ বাজারে চলছে জমজমাট বেচাকেনা।  ফুটপথ থেকে অভিজাত বিপনী বিতান সবখানে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত লেগে আছে মানুষের ভিড়।

ক্রেতারা শাড়ি কাপড় , স্যালোয়ার কামিজ, শার্ট প্যান্ট তৈরী পোষাকের দোকানের পাশাপাশি ছুটছেন পান্জাবী, জুতা-স্যান্ডেল, কসমেটিক্স ও ইমিটেশনের গহনার দোকানে।

মাগুরা শহরের বেবি প্লাজা, খান প্লাজা, নূর জাহান প্লাজা, কাজী টাওয়ার, বকসী মার্কেট, সুপার মার্কেট, জমজম মার্কেট, আল আমিন মার্কেট, কাপুড়িয়া পট্টি, জুাতাপট্টিসহ বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে মহিলাদের শাড়ি ও ছিট কাপড় ও রেডিমেন্ট পোষাক গামেন্টর্স-এর দোকানের পাশাপাশি  শেষ সময়ে এসে ক্রেতা ভীড় করছেন জুতা-স্যান্ডেল, কসমেটিক্স ও ইমিটেশনের দোকানে।

অভিজাত মার্কেটের পাশাপাশি আতর আলী রোড ও থানার সামনে ফুটপথের কাপড় ও কসমেটিক্স-এর দোকানগুলোতে কেনা কাটা করছেন নিম্ম আয়ের মানুষেরা।

মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

সৈয়দ আতর আলী সড়কের খান প্লাজায় বেনারসী হাউজের মালিক তনয় বিশ্বাস জানান, ঈদে ক্রেতারা বিভিন্ন ধরনের বুটিক, জর্জজেট, চন্দ্রিমা, কিরণমালা, জয়সিল্ক, টিস্যু, হাফ সিল্ক, বালুচুরি, জুট সিল্ক, রাজশাহী সিল্ক, জামদানী শাড়ী  কিনছেন। তবে বেশি বিক্রি হচ্ছে টাঙ্গাইল বাটিক ও তাতের শাড়ি।

মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

অন্যদিকে ছিটকাপড় ও তৈরী পোষাক প্রস্তুতকারক মাহি বস্ত্রালয়ের মালিক শরীফ রেজাউল জানান, গোল ফোরাগ, বাবর, বাহুবলী, ঝিলিক, কাশ্মিরী থ্রিপিস, ক্রেতাদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে। বেচা কেনা ভাল হচ্ছে। সামনে দুই দিনে আরো জমজমাট বেচাবিক্রি হবে।

এমআর রোডের এক্সপোর্ট জোনের মালিক জানান, ঈদে ছেলের ও বাচ্চাদের দেশি-বিদেশী সকল প্রকার পোষাকের সমারহ ঘটিয়েছেন। রোজার শুরুতে বেচাকেনা না জমলেও শেষ সময়ে এসে জমজমাট বেচা-কেনা হচ্ছে।

মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

শহরের ভায়না এলাকার গৃহবধূ নাহিদা বেগম বলেন, তিনি নিজেসহ পরিবারের সদস্যদের জন্য কেনাকাটা সেরেছেন। তবে তিনি অভিযোগ করেন মার্কেটে রকমারী পোষাক পাওয়া গেলেও দাম একটু বেশি।

শহরের দোয়ারপাড়া এলাকার শহিদুল ইসলাম জানান, এক্সপোর্ট জোন থেকে পছন্দ মত জিনস প্যান্ট ও পান্জাবী কিনেছেন। তবে গত বারের তুলনায় এবার দাম একটু বেশি বলে ক্রেতারা পছন্দের পোষাক কিনতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন।

নূরজা‎‎হান প্লাজার স্বপ্নিল কসমেটিকক্সের স্বপন সাহা জানান, গত দুই-তিন ক্রেতাদের চাপ অনেক বেশি। চাদ রাত পর্যন্ত বেচা কেনার এ চাপ থাকবে বলে তিনি আশা করেছেন।

মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

একইভাবে জুতা-স্যান্ডেল , কসমেটিক্স ও ইমিটেশনের দোকানীরা জানান ইদের আগে শেষ সপ্তাহে এসে ক্রেতাদের চাপ অনেক বেশি থাকে। তারা রাত ১২ টা পর্যন্ত জুতার দোকনে বিরতীহিনভাবে  বেচাবিক্রি  করছেন।

অন্যদিকে স্টার টেইলার্সের মালিক মহফুজুর রহমান মন্টু জানান- কাজের চাপ এত বেশি যে, ১৫ রোজার পর থেকে শার্ট-প্যান্ট বানানো অর্ডার নেওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। বর্তমানে যে অর্ডার রয়েছে তা বানাতে দর্জিদের সারা রাত কাজ করতে হচ্ছে। প্রায় প্রতিটি টেইলার্স কারখান একই রকম চাপ রয়েছে।

মাগুরায় ঈদ বাজারে জমজমাট বেচাকেনা

মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম জানান, মানুষ শান্তিতে ঈদের কেনা কাটা করে যাতে বাড়ি ফিরতে পারেন, সেজন্য শহরের সকল মার্কেট ও সড়কগুলো ব্যাপক পুলিশী পাহরা বসানো হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে