আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > মহাসড়কে গাড়ি চলছে ধীরে

মহাসড়কে গাড়ি চলছে ধীরে

gg

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক : মহাসড়কে অতিরিক্ত যানজট না থাকলেও গাড়ি চলছে ধীরে। ঘরমুখো মানুষের এতে একটু ভোগান্তি হলেও সারাদেশের কোথাও তীব্র যানজটের সংবাদ নেই।

যদিও শনিবার সকাল থেকেও রাজধানীর লঞ্চ ও বাস টার্মিনালগুলোতে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। যদিও নেই বাস। এছাড়া চট্টগ্রাম ও সিরাজগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন সড়কে স্বাভাবিকের চেয়ে ধীরে চলছে পরিবহনগুলো।

টার্মিনালে পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, টার্মিনালে গাড়ি নেই। মহাসড়কে গাড়িগুলো স্বাভাবিক গতিতে চলতে পারছে না। ফলে যানজট তেমন না থাকলেও গাড়িগুলো আসতে দেরি করছে।

গাবতলী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল হয়ে বাড়ি যেতে হয় উত্তরবঙ্গ ছাড়াও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষদের। একই রুটের বাসে উঠতে হয় সিরাজগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, কুষ্টিয়া, পাবনা, ঝিনাইদহের যাত্রীদেরও। এদের অনেকেই অগ্রীম টিকিট কাটতে পারেননি।

সিরাজগঞ্জে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কে থেমে থেমে চলছে যানবাহন। চাপ বাড়তে শুরু করেছে মহাসড়কে। মহাসড়কের সীমান্তবাজার এলাকা থেকে হাটিকুমরুল মোড় পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানবাহনের দীর্ঘ সারি রয়েছে। স্বাভাবিক গতিতে যানবাহন চলাচল করতে না পাড়ায় ধীর গতিতে চলাচল করতে হচ্ছে।

এদিকে শুক্রবার রাতভর যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ থাকলেও শনিবার সকালের দিকে পাটুরিয়া ফেরিঘাটে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসে। বেলা ১১টা পর্যন্ত ঘাটে পণ্যবাহী ট্রাক ছাড়া অপেক্ষমাণ কোনো যানবাহন ছিল না।

যাত্রীদের নির্বিঘ্নে বাড়ি ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ৩১ টি আন্তঃনগর ও স্পেশাল ছাড়াও লোকাল ও মেইল ট্রেন মিলিয়ে প্রতিদিন এখন দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ছুটে চলছে ৬৭ টি ট্রেন।

রাজধানীর বাইরে আজও চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে ঘরমুখো মানুষের ভিড়। যাত্রীর চাপ থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেকেই ট্রেনের ছাদে চড়েই ছুটছেন বাড়ির উদ্দেশ্যে ঘরমুখো মানুষরা। এসময় বগিতে জায়গা না পেয়ে অনেক নারীও ছাদে উঠে বসেছেন। তবে এত কষ্ট সহ্য করেও প্রিয়জনদের সাথে ঈদ করতে যেতে পারায় খুশি তারা। আর এদিকে নগরীর অনেক লোক গ্রামে চলে যাওয়ায় চট্টগ্রাম নগরী এখন অনেকটা ফাঁকা নগরীতে পরিণত হচ্ছে।

ট্রেনে যাত্রীর সংখ্যা অনেক বেশি হওয়ায় জায়গা মিলেছে ট্রেনের ছাঁদে। তবুও ঈদ বলেই কথা। সঠিক সময়ে ট্রেনের টিকিট পেয়ে বাড়ি ফিরতে পেরেই খুশি তারা।

যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপ থাকায় নির্ধারিত সময়ের আগেই ছেড়ে যাচ্ছে লঞ্চ। পাশাপাশি একই গন্তব্যের জন্য একাধিক লঞ্চ নোঙর করা রয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে