আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > প্রথম ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইসরায়েল গেলেন মোদী

প্রথম ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইসরায়েল গেলেন মোদী

117d5b0b6866d7555ffd6049bbb844e0-595c91e45ece3প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

ইসরায়েল পৌঁছানোর পর ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী  নরেন্দ্র মোদীকে লাল গালিচা অভ্যর্থনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানইয়াহু। দুদেশের ভাষা দিয়েও হয় শুভেচ্ছা বিনিময়।

২৫ বছর আগে ভারত ইসরায়েল কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হলেও এখনও পর্যন্ত দেশটির কোনও রাষ্ট্র বা সরকারপ্রধান তেল আবিব সফর করেননি। তবে বিগত বছরগুলোতে প্রতিরক্ষা ও সন্ত্রাস দমনে একসঙ্গে কাজ করছে দুই দেশ। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের মতে, প্রতি বছর দুই দেশের মাঝে ১০০ কোটি ডলারের অস্ত্র ব্যবসা হয়। বর্তমানে ভারতে তৃতীয় বৃহত্তম অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ ইসরায়েল। মোদির সফরে নতুন কোনও সামরিক চুক্তি সম্পাদিত হতে পারে। এতে দুদেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো জোরদার হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। নেতানিয়াহু ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সাথে এ বৈঠককে দুই দেশের সম্পর্ক জোরদারে খুবই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হবে বলে আশা করেন, বলে জানিয়েছে টাইমস অব ইসরায়েল।

নেতানিয়াহু বলেছেন, ভারতের সঙ্গে তার দেশের সম্পর্ক ‘ধারাবাহিক উন্নতির পথে’ই আছে। গত এক দশকে ভারত এবং ইসরায়েলের মধ্যে বিশেষ করে প্রতিরক্ষা খাতে সম্পর্কের প্রসার ঘটেছে এবং তা নিবিড় হয়েছে। ২০১৬ সালের মার্চ পর্যন্ত তিনটি অর্থবছরে ইসরায়েল ভারতে তৃতীয় বৃহত্তম অস্ত্র সরবরাহকারী দেশে পরিণত হয়েছে। সফরে সাইবার প্রযুক্তি, প্রতিরক্ষা, অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা, এই তিনটি ক্ষেত্রেই ভারত-ইসরায়েল সহযোগিতার কথা ঘোষণা করা হবে।  তবে ফিলিস্তিনি নেতাদের সঙ্গেও মোদির বৈঠকের কোনো সম্ভাবনা নেই।

নেতানইয়াহু বলেন, ‘আমরা অনেকদিন ধরেই এমন একটি সুন্দর মুহূর্তের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। এর জন্য আমরা ৭০ বছর ধরে অপেক্ষা করেছি। তাছাড়া ভারত তাদের বন্ধু বলেও উল্ল্যেখ করেন তিনি’। এটি একটি ঐতিহাসিক সফর হিসেবে গণনা হবে। নেতানইয়াহু তার নিজের বাড়িতেও দাওয়াত দেন মোদীকে। তবে মোদীকের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সুবিধা দেয়া হয়েছে। তিনি সবচেয়ে নিরাপদ হোটেলে রয়েছেন এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে