আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > ক্যাম্পাস > জাবি’র প্রশাসনিক কর্মকর্তা হলেন ‘রবিউলপত্নী’ সালমা

জাবি’র প্রশাসনিক কর্মকর্তা হলেন ‘রবিউলপত্নী’ সালমা

জাবি’র প্রশাসনিক কর্মকর্তা হলেন ‘রবিউলপত্নী’ সালমা

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক :

গুলশানে জঙ্গি হামলায় নিহত এসি বরিউল ইসলামের স্ত্রীকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) কর্তৃপক্ষ প্রশাসনিক অফিসার পদে নিয়োগ দিয়েছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার তাকে গ্রন্থাগার অফিসে উচ্চমান সহকারী (তৃতীয় শ্রেণি) পদে মাস্টাররোল ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। প্রথম শ্রেণির যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও তৃতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেয়ায় সমালোচনার মুখে পড়ে জাবি প্রশাসন।

শুক্রবার দুপুর ২টা ২০ মিনিটে প্রশাসনিক অফিসার (প্রথম শ্রেণি) পদে চাকরির নিয়োগপত্র এসি রবিউলের স্ত্রী উম্মে সালমার হাতে তুলে দেন ভিসি অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম। তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে তাকে এ নিয়োগ দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

এক জুলাই জাবির জনসংযোগ অফিস থেকে প্রেরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, নিহত পুলিশের সহকারী কমিশনার (এসি) রবিউল ইসলামের স্ত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাবি প্রশাসন। এ খবর দৈনিক পত্রিকাগুলোতে প্রকাশিত হলে মানুষের প্রশংসা কুড়িয়েছিল জাবি প্রশাসন।

কিন্তু ৬ জুলাই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে বলা হয়, মিসেস উম্মে সালমাকে (স্বামী: মৃত রবিউল ইসলাম) এই বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগার অফিসে উচ্চমান সহকারী পদে মাস্টাররোল ভিত্তিতে (কাজ করলে মজুরি) দৈনিক ৫২৫ টাকা মজুরিতে ৯০ দিনের জন্য নিয়োগ দেয়া হলো।

এ নিয়োগপত্র হস্তান্তরের পর জানাজানি হলে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে প্রশাসন। এসি রবিউল ইসলামের (বিপিএম-মরণোত্তর) স্ত্রী উম্মে সালমা মাস্টার্স পাস। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা মাস্টার্সে প্রথম শ্রেণি, অনার্সে ২য় শ্রেণি এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধমিক দুটোতেই প্রথম বিভাগ।

উল্লেখ্য, এসি রবিউল ইসলাম জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ৩০তম ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গিদের নারকীয় হামলায় তিনি নিহত হন।

এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে