আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > ছবিতে হলি আর্টিজানে নিহতদের প্রতি ফুলেল শ্রদ্ধা

ছবিতে হলি আর্টিজানে নিহতদের প্রতি ফুলেল শ্রদ্ধা

ha11

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক : হলি আর্টিজান হামলার একবছর। সকালটা ছিল নিস্তব্ধতায় ভরা, গুলশান ও এর চারপাশ হয়ে আছে থমথমে। গত বছরের এ দিনটিতে গুলশান দুইয়ের ৭৯ নম্বর সড়ক ও এর আশেপাশে সূর্য ওঠে গুলি, বুট আর ভারি যানের শব্দে।

এদিন সকাল থেকেই জঙ্গি হামলায় নিহত ব্যক্তিদের উদ্দেশে শ্রদ্ধা নিবেদন করে নিহতদের আত্মীয়-স্বজন, পরিবার, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও সাধারণ মানুষ।

গত বছরের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে নারকীয় জঙ্গি হামলায় দেশি-বিদেশি ২০ নাগরিক ও দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়। জঙ্গিরা সারা রাত অবরোধ করে রেখেছিল রেস্টুরেন্টটি। পরদিন (২ জুলাই) সকালে সেনা কমান্ডোদের অভিযানে নিহত হয় পাঁচ জঙ্গি। এসময় সাইফুল ইসলাম নামে ওই রেস্তোরাঁর একজন শেফও নিহত হন।

ha2সকালে গুলশান হামলায় নিহত ব্যক্তিদের নিজ নিজ দেশের রাষ্ট্রদূত, স্বজন হারানো মানুষ আর বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতানেত্রীরা ফুল দিয়ে এক মিনিট করে নিরবতা পালন করেন। সকাল সাড়ে ৭টায় কড়া নিরাপত্তায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন জাপানি রাষ্ট্রদূত মাসাতো ওয়াতানাবি। এসময় রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে তার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কর্মকর্তা, জাইকার কর্মকর্তাবৃন্দ ও ডিএমপির গুলশান বিভগের পুলিশকর্মকর্তারা ছিলেন।

ha6

সকাল পৌনে ১০ টার দিকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘জঙ্গিরা দুর্বল হয়েছে, তবে নির্মূল হয়নি। শুধু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বা সেনাবাহিনীর ওপর নির্ভর করলে চলবে না। আমাদের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।’

ha9

সকাল ১০টার দিকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। এসময় উপস্থিত ছিলেন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী নূপুর, ফেরদৌসি প্রিয়ভাষিনী, শহিদ বুদ্ধিজীবী শহিদুল্লাহ কায়সারের মেয়ে শমী কায়সার প্রমুখ।

ha8

বিএনপির যুগ্ন মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী শ্রদ্ধা জানাতে এসে বলেন, ‘আমাদের আবহমান বাংলার যে সাম্প্রতিক বন্ধন, তাতে কালিমার তিলক দিয়েছে এই হামলা। ক্ষমতাসীনদের পক্ষ থেকে যখনই বলা হয় উগ্রবাদ নির্মূল করা হয়েছে, তখনই দেশের কোথাও না কোথাও উগ্রবাদের হিংসাত্মক থাবা পড়ছে।’

ha12বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মোখলেছুর রহমান। তিনি বলেন, ‘হলি আর্টিজানের ঘটনাটা ছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জন্য একটা টার্নিং পয়েন্ট। তাৎক্ষণিকভাবে আমরা তা মোকাবিলা করতে গিয়ে দুজন সিনিয়র অফিসারকে হারিয়েছি। রাষ্ট্রীয় পৃষ্টপোষকতায় এবং পুলিশ ও অন্যান্য বাহিনীর পেশাদারিত্ব বজার রেখে জীবন বাজি রেখে বাংলাদেশকে একটি নিরাপদ রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বের বুকে পরিচিত করতে পেরেছি।’

এসময় তার সঙ্গে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলামসহ আরও ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ছিলেন।

ha1এরপর নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসেন ইতালির নিহত স্বজন ও দাতা সংস্থার প্রতিনিধি দল। ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর সময় ঢুকরে কেঁদে উঠতে দেখা যায় তাদের কাউকে কাউকে। হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার ঘটনায় ১৭ জন বিদেশি নাগরিক নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে ইতালিয়ান ৯ জন, জাপানি সাত জন ও একজন ভারতীয় নাগরিক।

ha5

সকাল সাড়ে ১১টার মধ্যেই ফুল ‍ফুলে ছেয়ে গেছে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য নির্ধারিত বেদী।

ha4

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে