আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি মিশন শেষে দেশে ফিরলেন মাশরাফিরা

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি মিশন শেষে দেশে ফিরলেন মাশরাফিরা

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি মিশন শেষে দেশে ফিরলেন মাশরাফিরা

প্রতিচ্ছবি ক্রীড়া প্রতিবেদক : ত্রিদেশীয় সিরিজ এবং চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দীর্ঘ দুই মাসের সফর শেষে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। শনিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের বহনকারী বিমানটি রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়। এমিরেটস এয়ারলাইনসের বিমানে করে ইংল্যান্ড থেকে সকাল পৌনে ৯টায় বাংলাদেশে পৌঁছানোর কথা ছিল ক্রিকেটারদের। কিন্তু বিমান ছাড়তে দেরি হওয়ায় এক ঘণ্টা দেরিতে পৌঁছাতে হলো তাদের।

ইংল্যান্ডের সাসেক্সে ক্যাম্প করতে গত ২৭ এপিল রাতে ঢাকা ছেড়েছিল বাংলাদেশ দল। সাসেক্সে নয়দিনের ক্যাম্প শেষে বাংলাদেশ উড়াল দেয় আয়ারল্যান্ডে। সেখানে ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নেয় বাংলাদেশ। ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে ২৫ মে ইংল্যান্ডে ফিরে বাংলাদেশ।

প্রস্তুতি পর্বে ২৭ মে পাকিস্তান ও ৩০ মে ভারতের সঙ্গে ম্যাচ খেলে ১ জুন বাংলাদেশের স্বপ্নের পথে যাত্রা শুরু হয়। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির উদ্বোধনী ম্যাচে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। ৫ জুন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ। বৃষ্টিতে ভেস্তে যাওয়া ম্যাচে বাংলাদেশ এক পয়েন্ট অর্জন করে। ৯ জুন কার্ডিফে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশ পায় স্বপ্নের সেমিফাইনালের টিকেট। কিন্তু বিগ সেমিফাইনালে ভারতের সঙ্গে পারেনি টাইগাররা।

চ্যাম্পিয়নরা খেলেছে চ্যাম্পিয়নের মতোই। ব্যাটিংয়ে শুরুর ধাক্কা সামলে দারুণ এক জুটিতে এগিয়ে যাচ্ছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু ভারতীয় বোলাররা ঘুরে দাঁড়িয়েছেন দারুণ ভাবে। লক্ষ্যটাকে রেখেছে নাগালে। টাইগারদের হয়ে তামিম ৭০, মুশফিক ৬১,মাশরাফি ৩০* রান করেন।

ব্যাটিং স্বর্গে সেই লক্ষ্যের দিকে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা ছুটল বুলেট ট্রেনের গতিতে। বাংলাদেশের বোলারদের সব প্রচেষ্টা পিষ্ট হয়েছে সেই ট্রেনের চাকায়। ভারত ম্যাচ শেষ করেছে প্রায় ১০ ওভার আগেই। ভারতের হয়ে রোহিত ১২৩*, ধাওয়ান ৪৬, কোহলি ৯৬* রান করেন।

বোলিংয়ে বাংলাদেশের একমাত্র প্রাপ্ত শিখর ধাওয়ানের উইকেট। উড়ন্ত সূচনার পর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির রান মেশিনকে ফেরাতে পেরেছেন মাশরাফি।

বাংলাদেশের বোলারদের অসহায়ত্বের দিনে অধিনায়ক আরও একবার দেখিয়েছেন এখনও কেন তিনি দেশের সেরা বোলারদের একজন। বোলারদের অগুণতি রান গোণার দিনেও ৮ ওভারের টানা স্পেলে দিয়েছেন মাত্র ২৯ রান।

সাফল্য-ব্যর্থতার হিসাবে মাশরাফিদের জন্য এটি ছিল সফল এক টুর্নামেন্ট। আইসিসির কোন আসরে শেষ চারে প্রথমবারের মতো খেলল বাংলাদেশ। সেমিফাইনালে ভারতের দাপটে ফাইনালে টিকেট না পেলেও ক্রিকেটপ্রেমিদের মন জয় করেছে বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বে ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ যেভাবে খেলেছে তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে