আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > বিনোদন-সংস্কৃতি > কালরাতে লালযাত্রা

কালরাতে লালযাত্রা

পুরো পথই পাড়ি দেওয়া হলো ‘ধনধান্য পুষ্পভরা’ গানটি গেয়ে। সঙ্গে বাজল ঢোল, বেহালা, গিটার, মন্দিরা, করতাল, দোতারা, খমক…আরও কত কী!
একটি লাল কাপড় বহন করছিলেন তাঁরা। লাল মানে রক্ত। ২৫ মার্চ ভয়াল কালরাত স্মরণে এই লালযাত্রা। সবার সামনে বাংলা মায়ের ভূমিকায় নাহিদা সুলতানা, তাঁর পোশাকও লাল, ঝাঁপি থেকে ফুল ছড়িয়ে দিচ্ছিলেন পথে। বাকি সবাই তাঁর সন্তান, তাদের পরনে কালো পোশাক।
আয়োজনটি প্রাচ্যনাটের। ২০১০ সাল থেকেই প্রতিবছর ২৫ মার্চ এই আয়োজনে শরিক হন দলটির সদস্যরা, যুক্ত হন তাঁদের সতীর্থরা।
পথ হাঁটা শুরু হয়েছিল গতকাল বিকেলে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বর থেকে; শেষ হয়েছে ফুলার রোডের স্মৃতি চিরন্তন চত্বরে এসে। সেখানে রাখা হলো লাল বস্ত্রখণ্ডটি। চারপাশে প্রজ্বলিত হলো মোমবাতি।
মূল পর্ব শেষ হওয়ার পর প্রাচ্যনাটের সদস্যদের কণ্ঠে শোনা গেল ‘মুক্তির মন্দির সোপানতলে’ আর ‘ও আমার দেশের মাটি’ গান দুটি।
পদযাত্রা শুরুর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণহত্যা নিয়ে ছিল কাজী তৌফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি পরিবেশনা। উপস্থিত সবার মন কেড়ে নিয়েছিল তা।
আর হ্যাঁ, আজাদ আবুল কালাম, রাহুল আনন্দ, জার্নাল, সানজীদা প্রীতির মতো তারকারা ছিলেন সে যাত্রায়, কিন্তু অন্য সবার সঙ্গে মিশে গিয়ে তাঁরা বুঝিয়ে দিলেন, এটা আসলে তারকা মেলা নয়, সবার সঙ্গে মিলে গণহত্যা দিবসটি স্মরণে আনারই প্রয়াসমাত্র।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে