আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আইন-মানবাধিকার > ‘গায়েবি’ মামলার আদেশ রোববার

‘গায়েবি’ মামলার আদেশ রোববার

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

বিএনপির জ্যেষ্ঠ আইনজীবীসহ বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে করা ‘গায়েবি’ মামলার বৈধতা নিয়ে রিট করা হয় হাইকোর্টে। ফলে ওই রিটের ওপর  তৃতীয় একক বেঞ্চে আদেশের জন্য আগামী রোববার দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ আদেশের জন্য এদিন ধার্য করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, আগামী রোববার অ্যাটর্নি জেনারেল শুনানির পর আদালত এই মামলায় আদেশ দিবেন।

এর আগে গত ৯ অক্টোবর সারা দেশে বিএনপির জ্যেষ্ঠ আইনজীবীসহ বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে করা ‘গায়েবি’ মামলার রিটের ওপর বিভক্ত আদেশ দেন হাইকোর্ট।

বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী অন্তর্বর্তীকালীন আদেশসহ রুল জারি করলেও অপর বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল রিট খারিজ করে দেন। নিয়ম অনুসারে রিটটি নিষ্পত্তির জন্য একক বেঞ্চ (তৃতীয় বেঞ্চ) গঠন করে দেন।

২৩ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় জ্যেষ্ঠ আইনজীবী বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন, আইনজীবী বিএনপি সরকারের প্রাক্তন মন্ত্রী নিতাই রায় চৌধুরী ও বিএনপির আইন সম্পাদক সানা উল্লাহ মিয়া রিট করেন।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিটটি করা হয়। রিটে গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সারা দেশে বিএনপির জ্যেষ্ঠ আইনজীবীসহ বিএনপির নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে করা চার হাজার মামলায় তিন লাখেরও বেশি আসামি করার কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে এ বিষয়ে অনুসন্ধানের জন্য স্বাধীন তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়। এছাড়া আওয়ামী লীগ ব্যতিত অন্য দলের নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত যত গায়েবি মামলা হয়েছে, সেগুলোর তদন্ত বন্ধ এবং এসব গায়েবি মামলার বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে কমিটি গঠন করে ঘটনার তদন্ত এবং তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী সময়ে যেন এ ধরনের মামলা আর দেওয়া না হয়, তার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি আওয়ামী লীগ ব্যতিত অন্য রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশি ক্ষমতার অপব্যবহার করে গায়েবি বা আজগুবি মামলা দায়ের করা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, রিটে সে বিষয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়।

এএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে