আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > চট্টগ্রাম টেস্টের খেলা নিয়ে অনিশ্চিত সাকিব আল হাসান

চট্টগ্রাম টেস্টের খেলা নিয়ে অনিশ্চিত সাকিব আল হাসান

চট্টগ্রাম টেস্টের খেলা নিয়ে অনিশ্চিত সাকিব আল হাসান

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টস ডেস্ক:

চট্টগ্রাম টেস্টে সাকিব আল হাসান খেলবেন কি না, তা তিনি নিজেই এখনো অনিশ্চিত।

অধিনায়ক হয়ে সাকিব ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের স্কোয়াডে ফিরেছেন। বুধবার সকালে ম্যাচ-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনেও এলেন অধিনায়ক হয়ে। কিন্তু বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া চট্টগ্রাম টেস্টে সাকিব খেলবেন কি না, তা নিয়ে রয়েছে সংশয়। সংশয় সাকিবের নিজেরই! তাইতো তাকে নিয়ে এখনো ধোঁয়াশা কাটেনি।

বাঁ হাতের কনিষ্ঠার চোট কাটিয়ে পুরোদমে চার সেশন অনুশীলন করেছেন। দলের সঙ্গে নিজেকে ঝালিয়ে নিয়েছেন দুই সেশন, বাকি দুই সেশনে ঐচ্ছিক অনুশীলন করেছেন। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং সবই করেছেন। কিন্তু ম্যাচ ফিটনেস কি পেয়েছেন সাকিব?

টেস্ট খেলা মানেই পাঁচ দিনের ধকল। মাঠে ফিরেই পাঁচ দিনের ম্যাচ খেলা বেশ কঠিন। তাই তার খেলা নিয়ে শঙ্কার মেঘ!

আঙুলের অবস্থা ভালো, তা নিজেই নিশ্চিত করেছেন। ব্যাটিং-বোলিংয়ে ব্যথা অনুভব করছেন না একটুও। নেটে পুরো ছন্দে ঘাম ঝরালেও তার ম্যাচ ফিটনেস নিয়ে যত ভয়। সংবাদ সম্মেলনে সেই ভয়ের কথাই জানালেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

‘পাঁচ দিন খেলাটা কতটা চ্যালেঞ্জের হবে, এটা আমরা সবাই জানি। যদি ম্যাচ পাঁচ দিনে যায় তাহলে তো চ্যালেঞ্জিং অবশ্যই। এই কারণে এখনো একটু হলে সংশয়ে আছি যে, ওই অবস্থানে আমি এখনো পৌঁছেছি কি না। কারণ আমি মাত্র চারটি সেশন অনুশীলন করেছি। এর ভেতরে দুটি সেশন ছিল ঐচ্ছিক। দেখা যাক, শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত আসলে অপেক্ষা করতে হবে খেলছি কি না এটার জন্য’- বলেছেন সাকিব।

এ বছরের শুরুতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ফিল্ডিং করতে গিয়ে বাঁ হাতের কনিষ্ঠায় চোট পেয়েছিলেন সাকিব। ব্যথা কমাতে ইনজেকশন নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন বারবার। কিন্তু এশিয়া কাপ খেলার সময় হঠাৎ আঙুল ফুলে যায়। দেখা দেয় ইনফেকশন (সংক্রমণ)। যে পরিমাণ পুঁজ আর দূষিত রক্ত বের করা হয়েছে, তাতে শঙ্কিত ছিল সবাই।

শঙ্কা ছিল আঙুলের সংক্রমণ আবার না হাড়ে ছড়িয়ে পড়ে। তবে মেলাবোর্নের হাসপাতালের রিপোর্ট অনুযায়ী, সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ছিল। অস্ট্রেলিয়া থেকেই পুনর্বাসন শুরু করেন। দেশে ফিরে পাক্কা ৩০ দিন পর ব্যাট হাতে নেন। প্রথমে স্পিন আক্রমণ দিয়ে ব্যাটিং অনুশীলন শুরু করেন। ধীরে ধীরে বাড়ান গতি। চট্টগ্রাম টেস্টের আগে পূর্ণ গতিতে চার সেশন অনুশীলন করেছেন। ৩১ বছর বয়সি সাকিব পাঁচ দিনের ম্যাচে নামতে পারেন কি না, সেটাই এখন দেখার।

এএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে