আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > আদালতে খালেদা জিয়া

আদালতে খালেদা জিয়া

আজ আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক: জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাজিরা দিতে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আজ (বৃস্পতিবার) বিশেষ আদালতে যাবেন। তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে ওই মামলায় পাঁচজন সাক্ষীকে জেরার অনুমতি চেয়ে খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে উচ্চ আদালতে আবেদন করা হয়েছে। গত বুধবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় খালেদা জিয়ার আইনজীবী জাকির হোসেন ভূইঁয়া এই আবেদন করেছেন।

ঢাকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত তৃতীয় বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদ্দারের আদালতে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাক্ষীর জেরার দিন ধার্য রয়েছে এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য দেয়ার দিন ধার্য রয়েছে।

আইনজীবী জাকির হোসেন ভূঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, ওই মামলায় প্রসিকিউশনের ৩৬ জনের মধ্যে ৩২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। এই ৩২ সাক্ষীর মধ্যে পাঁচজনকে খালেদা জিয়ার পক্ষে জেরা করা হয়নি। পাঁচজনকে জেরা করা অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হলে ৮ জুন বিচারিক আদালত তা নামঞ্জুর করেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিভিশন আবেদনটি করা হয়। অবকাশ শেষে আগামী ২ জুলাই আদালত খোলার পর আবেদনটি হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হবে।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা থেকে জানা যায়, ২০০৫ সালে কাকরাইলে সুরাইয়া খানমের কাছ থেকে ‘শহীদ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টে’র নামে ৪২ কাঠা জমি কেনা হয়। কিন্তু জমির দামের চেয়ে অতিরিক্ত এক কোটি ২৪ লাখ ৯৩ হাজার টাকা জমির মালিককে দেওয়া হয়েছে বলে কাগজপত্রে দেখানো হয়, যার কোনো বৈধ উত্স ট্রাস্ট দেখাতে পারেনি। ওই অর্থ ছাড়াও ট্রাস্টের নামে মোট তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা অবৈধ লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে।

২০১০ সালের ৮ আগস্ট এসব অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে তেজগাঁও থানায় মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক হারুন-অর-রশিদ। অপরদিকে, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলা করে দুদক। ২০১০ সালের ৫ আগস্ট খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের উপ-পরিচালক হারুন আর রশীদ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে