আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > সাকিবময় বারোটা বছর!

সাকিবময় বারোটা বছর!

সাকিবময় বারোটা বছর! 2

প্রতিচ্ছবি ক্রীড়া প্রতিবেদক:

৬ আগষ্ট ২০০৬; বিশ্ব ক্রিকেটে হয়েছিলো নতুন এক তারার উদয়। বিশ্ব ক্রিকেট পরিচিত হয়েছিলো নতুন এক নামের সাথে। যিনি ব্যাটে-বলে সমানভাবে জ্বলে উঠে বাংলাদেশকে ওয়ান ম্যান আর্মি হিসেবে সার্ভিস দিয়ে গেছেন ১২ বছর।

বলছিলাম বর্তমানে ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এর কথা। ২০০৬ সালের আজকের এই দিনে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে অভিষেক হয়েছিলো তার।

সাকিব আল হাসান বর্তমানে এমন একজন ক্রিকেটার যার সব গুলো রেকর্ড ইয়াম বোথাম, কপিল দেব, শহীদ আফ্রিদিদের সাথে লেখা। কোনো কোনো রেকর্ডে তো তাদেরও ছাড়িয়ে গেলেন তিনি। এজন্যই আইসিসি তাকে দ্যা রানওয়ে লিডার উপাধিতে ভুষিত করেন।

সেরা অলরাউন্ডার সাকিবই

বর্তমানে তিনি টি-২০ এবং টেষ্টে সফলতার সাথে অধিনায়কত্ব করে যাচ্ছেন। তার অধিনায়কত্বে বাংলাদেশ দল বিদেশের মাটিতে টি২০ সিরিজ জয় করেন। অষ্ট্রেলিয়ার মতো টেষ্ট খেলুড়ে দেশকে টেষ্টে হানারোর গৌরব অর্জন করে সাকিবের কারণেই।

বাংলাদেশিদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ অফ দ্যা ম্যাচ এবং ম্যান অফ দ্যা সিরিজ পেয়েছেন এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। আইপিএল, সিপিএল, পিএসএল, বিগব্যাশ সহ বিশের সব বড় লীগে খেলে থাকেন সাকিব আল হাসান। সিপিএলে তার 4-1-6-6 বলিং ফিগারটি বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

সাকিবের অভিযোগের তীর ব্যাটসম্যানদের দিকে

১২ বছর ধরে ক্রিকেট বিশ্ব মাতানো এই অলরাউন্ডার বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট-ওয়ানডে-টি২০ মিলিয়ে ৩১০টি ম্যাচ খেলেছেন। ব্যাট হাতে একটি ডাবল সেঞ্চুরি ও ১২টি সেঞ্চুরির পাশাপাশি ৬৯টি হাফসেঞ্চুরি করেছেন তিনি, মোট রান করেছেন ১০হাজার ৪৯৩।

সমান ম্যাচে বল হাতে উইকেট পেয়েছেন ৫১৩টি। এরমধ্যে দুইবার ১০ উইকেট ও ১৯বার পাঁচ উইকেট লাভের গৌরবময় অর্জন রয়েছেন সাকিবের ঝুলিতে।

আজ অভিষেকের এক যুগ পুর্তির দিনে সাকিব আল হাসানকে শুভেচ্ছা ও শুভকামনা জানিয়েছেন দেশ-বিদেশের লাখো ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা।

এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে