আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিসে তরুণীকে ধর্ষণ

স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিসে তরুণীকে ধর্ষণ

rape

প্রতিচ্ছবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতে কলকাতার বৌবাজার থানা এলাকায় এক তরুণীকে (২৪) ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। গত রোববার সন্ধ্যায় নির্মলচন্দ্র স্ট্রিটে একটি আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিসে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই তরুণীর অভিযোগের ভিত্তিতে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার এক প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটরসহ তার সহযোগী এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ।

নিগৃহীতা ওই তরুণীর অভিযোগ, এই ঘটনায় অভিযুক্তকে সাহায্য করেছে এক নারী, যার সঙ্গে তিনি রোববার সন্ধ্যায় বৌবাজার মোড়ের কাছে নির্মলচন্দ্র স্ট্রিটের ওই অফিসে গিয়েছিলেন।

পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতের শীর্ষস্থানীয় একাধিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক ওই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটি বছরখানেক আগে এদেশে কাজ শুরু করে। ওই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অফিস রয়েছে ইথিওপিয়া, ব্রাজিলেও। সংস্থাটি মাস চারেক আগে কলকাতায় নির্মলচন্দ্র স্ট্রিটের একটি বাড়ির চারতলায় অফিস খোলে।

সম্প্রতি শিশুদের পড়াশোনার একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে সংস্থাটি। সেই প্রকল্পে শিক্ষিকা নিয়োগ চলছে। সংস্থার প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর রাজীব তার পরিচিত বৈশাখী করণ বিশ্বাস নামে এক নারীকে প্রকল্পের জন্য শিক্ষিকার খোঁজ দিতে বলেছিল।

বৌবাজার থানায় তরুণী জানিয়েছেন, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার ওই কর্মী শেখ রাজীব হোসেনের বাড়ি কড়েয়াতে। যে নারী তাকে রোববার সন্ধ্যায় ওই অফিসে নিয়ে গিয়েছিলেন, সেই বৈশাখী করণ বিশ্বাস মাধ্যমেই ওই যুবকের সঙ্গে আলাপ হয় তার। সেই সূত্র ধরেই সন্ধ্যায় তরুণী বৈশাখীর সঙ্গে যান নির্মলচন্দ্র স্ট্রিটের অফিসে।

তরুণী জানান, সেদিন রোববার থাকায় স্কুল ছুটি ছিল। অন্য কর্মীরাও ছিলেন না। সংস্থায় মোট ছয়জন কর্মী রয়েছেন। তাদের মধ্যে তিনজন পুরুষ, তিনজন নারী। প্রোজেক্ট ম্যানেজার হিসেবে জরুরি কাজ থাকায় অফিসে ছিলেন অভিযুক্ত রাজীব।

তরুণীর অভিযোগ, বৈশাখী তাকে পৌঁছে দিয়ে বিশেষ কাজের অছিলায় অভিযুক্তের সঙ্গে তাকে রেখে চলে যান। এ সময় একলা থাকার সুযোগেই তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে অভিযুক্ত।

নিগৃহীতা তরুণীর দাবি, তিনি বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। চিৎকারও করেছিলেন সাহায্য চেয়ে। কিন্তু ছুটির দিন থাকায় গোটা বাড়ি ছিল কার্যত জনশূন্য। তাই তার চিৎকারের পরও কেউ সাহায্যে এগিয়ে আসেননি।

পরে ঘটনাস্থল থেকে কোনোমতে তিনি পালিয়ে আসেন। তার পর রাতেই গোটা বিষয়টি নিজের পরিবারকে জানান। জানান বৈশাখীকেও। তরুণীর  অভিযোগ, সেই নারী তাকে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করতে না করে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত উত্তর কলকাতার ওই তরুণী বৌবাজার থানায় অভিযোগ জানান।

অভিযোগ পেয়েই রাত ১১টা নাগাদ ঘটনাস্থলে পৌঁছন তদন্তকারীরা। এদিন রাতেই গ্রেপ্তার করা হয় মূল অভিযুক্ত রাজীবকে।

নিগৃহীতা তরুণীর অভিযোগ, বৈশাখী গোটা পরিকল্পনা জানত। আর জেনে শুনেই তাকে অভিযুক্তের কাছে একা ছেড়ে গিয়েছিল। এই অভিযোগের ভিত্তিতে এই ধর্ষণ মামলায় ওই নারীও অভিযুক্ত।

বৈশাখীকে গতকাল সোমবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার বৈশাখী এবং রাজীব দুজনকেই আদালতে তোলা হবে বলে খবরে বলা হয়েছে।

জেএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে