আপনি আছেন

ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন

গাজীপুর থেকে:

প্রার্থীদের পাল্টাপাল্টি অভিযোগের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়েছে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। এখন চলছে গণনা।

মঙ্গলবার সকাল ৮টায় শুরু হয়ে একটানা বিকেল ৪টা পযর্ন্ত ভোটগ্রহণ চলে। অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলার অভিযোগে শেষ পযর্ন্ত ৫টি ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখা হয়।

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে [১]

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে সকাল থেকে ভোটারদের স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণ দেখা যায়। তবে ভোট গ্রহণের শুরু থেকে বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি দলের মেয়র প্রার্থীরা নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ আনে।

বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী হাসান আরিফ উদ্দিন কমপক্ষে ১০০ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের অনিয়মের অভিযোগ এনে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন বন্ধ করার দাবি জানান।

বিএনপির পক্ষে অভিযোগ, পুলিশ ও প্রশাসন পুরো নির্বাচন নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। নির্বাচনের দিন ইসিতে গিয়ে সরকার ও নির্বাচনের কমিশনের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ আনে বিএনপি।

ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা [২]

এবারের নির্বাচনে একজন মেয়র, ৫৭ জন কাউন্সিলর এবং ১৯ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন প্রার্থীরা। এরমধ্যে শুধু মেয়র পদে লড়েছেন ৭ জন প্রার্থী। এছাড়া সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ৮৪ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে লড়েছেন ২৫৬ জন। একটি সাধারণ কাউন্সিলর পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে একজন।

মেয়র পদে ছয় জন দলীয় প্রতীকে ও একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্দলীয় প্রতীকে লড়ছেন। আওয়ামী লীগের নৌক প্রতীকে মোহাম্মাদ জাহাঙ্গীর ও বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে মো. হাসান উদ্দিনের মধ্যে মেয়র পদে মুল প্রতিদ্বন্দ্বী। এছাড়াও এ পদের জন্য লড়ছেন সিপিবি, ইসলামী ঐক্য ফ্রন্ট, ইসলামী ঐক্যজোটসহ কয়েকটি দল।

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে নারী ভোটারদের উপচেপড়া ভিড়

নির্বাচনে ভোটে ৬টি কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। গাজীপুর সিটি করপোরেশনে মোট ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৯৩৫ জন, ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন নারী।

২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি টঙ্গী ও গাজীপুর পৌরসভাসহ প্রায় ৩৩০ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠন করা হয়। সে বছর ৬ জুলাই প্রথমবারের মতো নির্দলীয় প্রতীকে ভোট হয়। দলীয় প্রতীকে ভোট গ্রহণের লক্ষ্যে গত ১৬ জুন তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

 

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে