আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > সড়কে দুর্ঘটনা কমাতে প্রধানমন্ত্রীর ৬ নির্দেশনা

সড়কে দুর্ঘটনা কমাতে প্রধানমন্ত্রীর ৬ নির্দেশনা

মন্ত্রিসভার বৈঠক

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

সড়কে দুর্ঘটনা কমানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কয়েকটি সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন। আর এসব নির্দেশনার সুনির্দিষ্ট তদারকির দায়ভার দিয়েছেন স্বরাষ্ট্র, সড়ক পরিবহন ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়কে।

সাম্প্রতিক সময়ে সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী এসব নির্দেশনা দেন বলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান।

তিনি বলেন, মন্ত্রিসভা বৈঠকে সড়ক পরিবহন ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় প্রধানমন্ত্রী দূরপাল্লায় চালকদের যাতে একটানা পাঁচ ঘণ্টার বেশি গাড়ি চালাতে না হয়, সে জন্য বিকল্প চালক রাখার নির্দেশনা দেন।

এ ছাড়া সড়কের পাশে বিশ্রামাগার তৈরি, সিগন্যাল মেনে চলা, অনিয়মতান্ত্রিক রাস্তা পারাপার বন্ধ, সিটবেল্ট বাঁধা এবং চালক ও তার সহকারীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

ঈদের ছুটি শেষে ফিরতি যাত্রায় গত ২৩ জুন ১২ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ৩৯ জনের মৃত্যু হয়। আর গাইবান্ধা থেকে ট্রাকে করে হবিগঞ্জে যাওয়ার পথে সোমবার সকালে টাঙ্গাইলে দুর্ঘটনায় পড়ে প্রাণ গেছে আরও ছয়জনের।

প্রধানমন্ত্রীর ৬ নির্দেশনা

* গাড়ির চালক ও তার সহকারীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা।

* লং ড্রাইভের সময় বিকল্প চালক রাখা, যাতে পাঁচ ঘণ্টার বেশি কোনো চালককে একটানা দূরপাল্লায় গাড়ি চালাতে না হয়।

* নির্দিষ্ট দূরত্ব পর পর সড়কের পাশে সার্ভিস সেন্টার বা বিশ্রামাগার তৈরি।

* অনিয়মতান্ত্রিকভাবে রাস্তা পারাপার বন্ধ করা।

* সড়কে যাতে সবাই সিগন্যাল মেনে চলে- তা নিশ্চিত করা। পথচারী পারাপারে জেব্রাক্রসিং ব্যবহার নিশ্চিত করা।

* চালক ও যাত্রীদের সিটবেল্ট বাঁধার বিষয়টি নিশ্চিত করা।

শফিউল বলেন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, নৌমন্ত্রী শাজাহান খান এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে মাঝে মধ্যে বসে বিষয়টি নিবিড়ভাবে পরিবীক্ষণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এটি তাদের নিয়মিত দায়িত্বের মধ্যেই আছে।

সিটবেল্ট না বাধায় দুর্ঘটনায় মৃত্যু বাড়ছে জানিয়ে শফিউল বলেন, মিশুক মনিরের ঘটনা বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে- তিনি গাড়ির সামনে সিটবেল্ট ছাড়া বসেছিলেন।

২০১১ সালে মানিকগঞ্জে একটি বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে এটিএন নিউজের প্রধান নির্বাহী মিশুক মুনীর ও চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদসহ পাঁচজনের মৃত্যু হয়।

সড়ক দুর্ঘটনা ঠেকাতে এ সংক্রান্ত আইন আরও কঠোর করা হচ্ছে জানিয়ে শফিউল বলেন, আইনটি এখনও পাস হয়নি, ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে আছে, দ্রুততার সঙ্গে নিষ্পত্তি করা হবে।

এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে