আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > আগ্রাসী পর্তুগালের সামনে উজ্জীবিত ইরান

আগ্রাসী পর্তুগালের সামনে উজ্জীবিত ইরান

আগ্রাসী পর্তুগালের সামনে উজ্জীবিত ইরান

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টাস ডেস্ক:

নকআউট পর্বের টিকিট নিশ্চিত করার মিশনে আজ সারানক্সের মাঠে নামছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল। প্রতিপক্ষ ‘বি’ গ্রুপে পয়েন্ট টেবিলের তিনে থাকা ইরান।

২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপে প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নেয়া পর্তুগাল এবার উড়ন্ত সূচনা করলেও এখন পর্যন্ত নকআউট পর্ব নিশ্চিত করতে পারেনি। কার্যত রোনাল্ডো একাই লড়ছেন পর্তুগালের হয়ে। প্রথম দুই ম্যাচে দলের চার গোলের সবগুলোই করেছেন সিআর সেভেন।

প্রথম দু’ম্যাচে হেরে এর মধ্যে বিদায় ঘণ্টা বেজে গেছে মরক্কোর। ‘বি’ গ্রুপের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সম্ভাবনা এখনও সজীব বাকি তিন দলের। দুটি ম্যাচে সমান চার পয়েন্ট ও সমান গোল ব্যবধান নিয়ে যৌথভাবে শীর্ষে রয়েছে পর্তুগাল ও স্পেন।

ইরানের ঝুলিতে রয়েছে তিন পয়েন্ট। দলটিরও সুযোগ রয়েছে শেষ ষোলোর টিকিট কাটার। সেজন্য কার্যত অসম্ভবকে সম্ভব করতে হবে তাদের। হারাতে হবে রোনাল্ডোর পর্তুগালকে। সেক্ষেত্রে বিদায় ঘণ্টা বাজবে রোনাল্ডো বাহিনীর।

তবে স্পেন যদি মরক্কোর কাছে হারে সেক্ষেত্রে স্পেন ও পর্তুগালের পয়েন্ট হবে চার। তখন মীমাংসা হবে গোল ব্যবধানের ভিত্তিতে। তবে ওসব জটিল সমীকরণে যেতে চান না রোনাল্ডো।

শেষ ম্যাচে এক পয়েন্টের দরকার হলেও ইরানের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প কিছু ভাবছেন না পর্তুগাল অধিনায়ক, ‘আশা করছি আমাদের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে। শীর্ষে থেকে আমরা গ্রুপপর্ব শেষ করতে চাই। আশা করি সেটা আমরা করতে পারব ইরানকে হারিয়েই।’

পর্তুগাল ডিফেন্ডার পেপে অধিনায়কের পারফরম্যান্সে মুগ্ধ, ‘রোনাল্ডোর মতো খেলোয়াড় থাকা যে কোনো দলের জন্য আশীর্বাদ। সে মাঠে অন্যদের কাজ সহজ করে দেয়।’

ম্যানসিটি তারকা বার্নাদো সিলভার দৃষ্টিতে ৩৩ বছর বয়সেও অপ্রতিরোধ্য সিআর সেভেন, ‘সে প্রতি বছর উন্নতি করছে। বয়স বাড়লেও মাঠের পারফরম্যান্সে তার বিন্দুমাত্র প্রভাব পড়েনি। সবাইকে অবাক করে দিয়ে এখনও সে অপ্রতিরোধ্য।’

বিশ্বকাপে শেষ দেখায় ইরানকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়েছিল পর্তুগাল। সেই ম্যাচে শেষ সময়ে পাওয়া পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান বাড়ান রোনাল্ডো। আজও তার পুনরাবৃত্তি চাইবেন তিনি।

এই ম্যাচে ফিডফিল্ডার মুতিনহোকে ছাড়াই মাঠে নামতে হতে পারে পর্তুগিজদের। অসুস্থতার কারণে শনিবার অনুশীলন করেননি তিনি। সারানক্সে একাদশে ফিরতে পারেন রাফায়েল গেহেইরো। যিনি পায়ের চোটে ভুগছিলেন। ম্যাচটি ড্র হলেও শেষ ষোলো নিশ্চিত হবে পর্তুগিজদের। সেক্ষেত্রে নকআউট পর্বে উরুগুয়ে অথবা স্বাগতিক রাশিয়ার মুখোমুখি তারা।

অন্যদিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মরক্কোর বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানে জিতলেও পরের ম্যাচে একই ব্যবধানে স্পেনের কাছে হারে ইরান। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে পা রাখতে জয়ের কোনো বিকল্প নেই তাদের।

ইরানের পর্তুগিজ কোচ কার্লোস কুইরোজের চোখে সেই অসম্ভবের স্বপ্ন, ‘স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে হলে আমাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। আমরা স্বপ্ন দেখি দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার। তবে জানি যে এটা খুবই কঠিন। কিন্তু আমি আশা ছাড়ছি না। ইরানে আমার সাত বছরের কোচিং অধ্যায়ে এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ।’

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে