আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > হঠাৎ শরণার্থী শিবিরে মেলানিয়া ট্রাম্প!

হঠাৎ শরণার্থী শিবিরে মেলানিয়া ট্রাম্প!

প্রতিচ্ছবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত বুধবার সমালোচনার মুখে শরণার্থী শিশুদের সঙ্কট মোকাবেলায় প্রশাসনিক নির্দেশে সই করেন। তার ঠিক কয়েক ঘণ্টা পরেই মেক্সিকো সীমান্তের এক অভিবাসী আটক কেন্দ্র হঠাৎ পরিদর্শনে গেলেন মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প।

টেক্সাসের ম্যাকালেনের এই কেন্দ্রে কয়েক ঘণ্টা ছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন মার্কিন স্বাস্থ্যসচিব অ্যালেক্স আজ়ার। অভিবাসী আটক কেন্দ্রের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসে ফার্স্ট লেডি প্রশ্ন ছুড়ে দেন— ‘‘এই সব বাচ্চাকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে আমি কী করতে পারি?’’

সমালোচকেরা বলছেন, তার জ়িরো টলারেন্স নীতির জন্যই পরিবারের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে প্রায় আড়াই হাজার শিশু। যদিও প্রেসিডেন্টের দাবি, আগের জমানায় ডেমোক্র্যাটদের ভ্রান্ত নীতির জন্যই ভুগতে হচ্ছে অভিবাসীদের।
চাপের মুখে পড়ে নিজের অবস্থান থেকে সরতে বাধ্য হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

ওভাল অফিসে নির্দেশে সই করে ট্রাম্প বলেন, ‘‘অভিবাসী শিশুদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করা হচ্ছে দেখে আমার স্ত্রী মেলানিয়া খুবই ভেঙে পড়েছেন। এ ভাবে বাচ্চাদের আলাদা করার বিরোধিতা করেছে আমার মেয়ে ইভাঙ্কাও। আমিও এ ভাবে বাচ্চাদের বিচ্ছিন্ন করার বিরোধী।’’

কিছুটা সুর নরম করলেও ট্রাম্প অবশ্য বলছেন, ‘‘আমি পিছু হটেছি, ভাবার কোনও কারণ নেই! সীমান্ত কঠিন হবেই। খুব কঠিন। কিন্তু পরিবার বিচ্ছিন্ন থাকবে না। বিচ্ছিন্ন পরিবারের ছবি দেখে আমার ভাল লাগেনি।’’

প্রেসিডেন্টের চার পাতা নির্দেশ অনুযায়ী, এখনও যারা অবৈধ ভাবে সীমান্ত পেরোনোর চেষ্টা করবেন, তাদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আটক করা হলেও এমন জায়গায় সেই সব পরিবারকে রাখার ব্যবস্থা করা হবে যাতে শিশুরা বিচ্ছিন্ন হয়ে না পড়ে। কিন্তু সেই জায়গা ঠিক কোথায়, তা নিয়ে সুস্পষ্ট কিছু বলা নেই প্রশাসনিক নির্দেশে। তাই যত দিন সেই জায়গা ঠিক করা হচ্ছে, তত দিন পর্যন্ত শিশুরা ফের আলাদা থাকবে কি না, সে সম্পর্কেও কোনও তথ্য দেননি প্রেসিডেন্ট। হোয়াইট হাউসের অফিসাররাও এ ব্যাপারে কিছু বলতে পারেননি।

এসএইচ/ এএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে