আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > কাঁচাবাজারে কাটেনি ছুটির রেশ

কাঁচাবাজারে কাটেনি ছুটির রেশ

কাঁচাবাজারে কাটেনি ছুটির রেশ

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

ঈদের লম্বা ছুটিতে রাজধানী ঢাকা এখনো অনেকটা ফাঁকা। সরকারি-বেসরকারি কর্মজীবীরা ফিরলেও এখনো ফেরেনি অনেকেই। আর তাই এর প্রভাব পড়েছে কাঁচা বাজারে। দোকানিদের হাঁকডাকও অন্যান্য সময়ের তুলনায় কম। শাক-সবজি বা মাছের দামও হেরফের হয়নি।

শুক্রবার (২২ জুন) রাজধানীর কাওরানবাজার, কাঁঠালবাগান ও রজনীগন্ধা মার্কেটসহ বেশ কয়েকটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, অনেক দোকানই বন্ধ। ক্রেতাদের আনাগোনাও কম।

ঢাকা সেনানিবাসের রজনীগন্ধা কাঁচাবাজারের সবজি বিক্রেতা রুহুল আমিন বলেন, লোকজন দ্যাশ থেইক্যা এহনও আইয়া সারে নাই। আবার অনেক দোকানি চান রাইতে বাড়ি গেছে, হ্যারাও ফেরে নাই।’ আগামী সপ্তাহ থেকে বাজার সরগরম হয়ে উঠবে বলে জানান তিনি।

মাছের বাজারে আগুন, কাঁচামরিচের দাম দ্বিগুণ

আরও কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৮০/৮৫টাকা কেজি, চিচিঙ্গা বিক্রি হচ্ছে ৬০/৬৫ টাকা কেজি, ধনে পাতা ২০ টাকা আটি, আলু ২৫ টাকা কেজি, পটল আকারভেদে ৪০/৪৫ থেকে ৫০-৬০ টাকা কেজি, বেগুন ৪৫-৬০ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা, গাঁজর ৫০-৬০ এবং বরবটি ৬০-৬৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি পিস লাউ ৩৫-৪০ টাকা, জালি কুমড়া প্রতি পিস ৪০/৪৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে বাজার ভেদে ২৪০ থেকে ৩০০ টাকা কেজি, পাঙ্গাস ১৩০/১৫০ টাকা কেজি, তেলাপিয়া ১৩০ টাকা কেজি, চাষের কৈ ২৩০/২৪০ টাকা, সিলভার কার্প ১১০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক জোড়া ইলিশ (মাঝারি) বিক্রি হচ্ছে ১২০০ থেকে ১২৫০ টাকা। গলদা চিংড়ি (আকার অনুযায়ী) বিক্রি হচ্ছে ৮০০ থেকে এক হাজার টাকায়। পাবদ মাছ ৭০০/৮০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

মাংস ঈদের আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। দেশি পেঁয়াজ, চিনি, সয়াবিন তেলের দামও স্থিতিশীল।

 

এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে