আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > ফাঁকা হচ্ছে ঢাকা, ভোগান্তিতেও বাড়ি ফেরার আনন্দ

ফাঁকা হচ্ছে ঢাকা, ভোগান্তিতেও বাড়ি ফেরার আনন্দ

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

সড়ক-মহাসড়কে যানজট। ৮ ঘণ্টার পথ পাড়ি দিতে সময় লাগছে ১৮ ঘণ্টা। বাসের জন্য টার্মিনালে ঘণ্টার পর অপেক্ষা। লঞ্চ ও ট্রেনে উপচে পড়া ভিড়। এ ছাড়া ভোগান্তির পথে পথে গুনতে হচ্ছে বাড়তি টাকা। পথে পথে সীমাহীন ভোগান্তি-বিড়ম্বনা। এত বিড়ম্বনার মধ্যেও শেকড়ের টানে আপন ঠিকানায় ছুটছেন কর্মব্যস্ত মানুষেরা।  ইতোমধ্যেই ফাঁকা হতে শুরু করেছে ঢাকা

প্রিয়জনের সাথে ঈদ উদযাপনের জন্য গতকাল ঘরমুখি মানুষের ঢল অব্যাহত ছিল। ঈদের আগের দিন আজও বাড়ি ফেরার জন্য সকাল থেকেই ঢাকার সর্বত্র উপচে পড়া ভিড়। শেষ মুহূর্তে ঘরমুখো মানুষ বাড়ি ফেরার জন্য তুমুল লড়াই করছে। যেকোনো মূল্যে হোক, সবার একটাই তাড়া বাড়ি যেতে হবে।

তাই আজ সকালেও ঢাকার কমলাপুর, সায়েদাবাদ, গাবতলী, মহাখালীসহ সদরঘাটে এখন উপচে পড়া ভীড়। এ সকল জায়গায় শুধু মানুষ আর মানুষ। অনেকে বাড়িতে যেতে লঞ্চ ধরার আশায় সদরঘাটে ঘাটেই রাত কাটিয়েছেন।

আজ শুক্রবার সকাল থেকেই বাড়তে থাকে জনতার ঢল। কেউ কেউ আগেই স্টেশনে এসে একটু ঘুমিয়ে নিচ্ছেন। কেউবা বসে বসেই ঝিমাচ্ছেন।

জানা গেছে, আজ দেশের বিভিন্ন রুটে ৬৯টি ট্রেন ছেড়ে যাবে। এর মধ্যে ৩২টি আন্তনগর, ৫টি স্পেশাল বাকিগুলো মেইল ট্রেন। যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য রেল পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা, আনসার সদস্যরা নিয়োজিত আছেন।

রেলওয়ের স্টেশন ম্যানেজার জানান, আজ যেহেতু যাত্রীদের চাপ বেশি তাই আজ আমাদেরও নানা উদ্যোগ আছে। আমরা চাই সবাই নিরাপদে ঘরে ফিরুক।

গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল সরকারি শেষ কর্মদিবস। দিনভর রাস্তায় ছিল ঘরমুখো মানুষের ঢল। তবে দুপুরের পর থেকে এ ঢল আরো বাড়তে থাকে। ইট-পাথরের শহর ছেড়ে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরছে রাজধানীবাসী।

বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক বলেন, উত্তরবঙ্গের রাজশাহী, রংপুর ও লালমনিরহাট রুটের ট্রেন ছাড়া অন্য সব রুটে রেল সময়মতো ছেড়ে গেছে। বিগত কয়েক দিনের চেয়ে ভিড় বেশি। আজই সবাই বাড়ি ফিরছেন। যাত্রীদের যেন কোনো সমস্যা না হয় সেজন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে এবার ঈদের দুদিন আগেও ঢাকার সদরঘাটে ভিড় আগের মতো দেখা যায়নি। কিন্তু বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে হাজার হাজার যাত্রী ভিড় জমায় সদরঘাটে। ভিড়ের চাপে উঠতে না পেরে অনেকে ভোরের লঞ্চের আশায় রাতে সদরঘাটেই কাটান।

শুক্রবার সকালে পন্টুনে  পটুয়াখালী, বরগুনার আমতলী, নোয়াখালীর হাতিয়া ও ভোলার বিভিন্ন রুটের যাত্রীদের অপেক্ষা করতে দেখা যায়।

বিআইডব্লিউটিএর একজন কর্মকর্তা বলেন, প্রায় ৩০ হাজার যাত্রী পন্টুনে রাতভর অপেক্ষা করেছিল।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে