আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রাজনীতি > খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করতে হবে: রিজভী

খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করতে হবে: রিজভী


প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

কোনো শর্তারোপ নয়, বেগম খালেদা জিয়ার পছন্দ অনুযায়ী ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা নিন। তিনি ইউনাইটেড হাসপাতাল ছাড়া কোথাও চিকিৎসা নেবেন না এ কথা বলেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বিএনপির এই মুখপাত্র।

রিজভী অভিযোগ করেন, বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে নোংরা রাজনীতি করছে সরকার। কারাগারের ভগ্নস্তুপের গুমোট পরিবেশে চিকিৎসাহীন দেশনেত্রী ট্র্যানসিয়েন্ট ইশেমিক অ্যাটাকে (টিআইএ) আক্রান্ত হয়ে অজ্ঞান হলেও এখনও তার চিকিৎসার সুরাহা করেনি সরকার।

রিজভী আরও বলেন, জনতার স্মৃতিতে বাসী হওয়ার কোনো সুযোগ নেই যে, শেখ হাসিনা যখন বন্দী ছিলেন তখন তিনি বেসরকারি স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছিলেন, প্যারোলে মুক্তি নিয়ে বিদেশে চিকিৎসা করিয়েছেন। আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম আব্দুল জলিল সাহেবও ল্যাব এইডে চিকিৎসা নিয়েছিলেন, বর্তমান স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিমও কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাৎক্ষণিক তাকে ল্যাব এইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) অথবা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসা নিতে হবে। তবে বিএনপি নেতারা বরাবরই বলে এসেছেন খালেদার চিকিৎসা তারা ইউনাইটেড হাসপাতালে করাতে চান।

তিনি বলেন, চিকিৎসা সেবা না দেয়ার জন্যই সরকারের শর্তারোপ। বিএনপির পক্ষ থেকে আমি পরিষ্কারভাবে বলতে চাই-পছন্দ অনুযায়ী চিকিৎসকদের চিকিৎসা নেয়া প্রত্যেক নাগরিকের অধিকার।

মহাসড়কে যানজট নেই-ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, বাস্তবতা হচ্ছে, ঈদে ঘরমুখো মানুষের দুর্ভোগের সীমা নেই। খানাখন্দে ভরপুর রাস্তাঘাটে বৃষ্টির পানি, কাদায় লুটোপুটি খাচ্ছে ঈদে বাড়ি ফেরা মানুষ। ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-উত্তরাঞ্চল, ঢাকা-ময়মনসিংহসহ সকল সড়ক-মহাসড়কে দীর্ঘ যানজটে পড়ে মানুষকে সীমাহীন কষ্ট ভোগ করতে হচ্ছে। শুধুমাত্র টঙ্গী-জয়দেবপুর পার হতেই লাগছে ৫ থেকে ১০ ঘণ্টা।
এএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে