আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > চট্টগ্রাম > মিতু হত্যার দুই বছর: প্রকৃত অপরাধীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে

মিতু হত্যার দুই বছর: প্রকৃত অপরাধীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে

মিতু হত্যার দুই বছর: প্রকৃত অপরাধীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে

প্রতিচ্ছবি চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামের জিইসি এলাকায় ২০১৬ সালের ৫ জুন খুন হন সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু। হত্যাকান্ডের দুই বছরে এসে মামলার তদন্ত কিছুটা শেষ পর্যায়ে আসলেও এখনও আটকে আছে পুলিশ রির্পোটের অপেক্ষায়।

এই ঘটনার কাল দুই বছর পূর্ণ হলেও এর মধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে ৭ জনকে। তবে ৭ জনের মধ্যে জামিনে রয়েছে ৪ জন। অন্যদিকে মিতুর মা বাবা মিতু হত্যার সাথে বাবুল আক্তার জড়িত থাকার কথা অভিযোগ করলেও পুলিশ তদন্তে মিলেনি এখনও কোন প্রমাণ। তাই বাবুলকে বাদ দিয়েই চার্জশীট হওয়ার সম্ভাবনার কথা শুনা যাচ্ছে পুলিশের একাধিক সূত্রে।

অন্যদিকে মিতুর বাবার অভিযোগ রয়েছে এখনও বাবুল আক্তার মিতু হত্যার আসামী। এমনকি তদন্তে গাফিলতির অভিযোগও করেন মিতুর বাবা মোশারফ।

আর অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার এবং প্রসিকিউশন জানান, এই মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৭ জনকে আটক করা হলেও এর মধ্যে জামিনে রয়েছে ৪ জন। দ্রুত এই মামলায় প্রকৃত আসামিদের গ্রেফতার করে মিতু হত্যা মামলার রহস্য উন্মেচন করার দাবি সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের।

দীর্ঘদিন নিশ্চুপ থাকার পর ২০১৬ সালের ৯ আগস্ট পদত্যাগপত্র প্রত্যাহারের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন বাবুল আক্তার। নানা নাটকীয়তা শেষে ৬ সেপ্টেম্বর বাবুলকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।২০১৬ সালের ডিসেম্বর থেকে পরবর্তী কয়েক মাসে তদন্ত কর্মকর্তার আমন্ত্রণে একে একে চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে আসেন মিতু ও বাবুলের মা-বাবা এবং বাবুল আক্তার নিজে।

জয় নয়ন/ইএ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে