আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > গুপ্তচর নিয়োগের বিজ্ঞাপন টিভিতে!

গুপ্তচর নিয়োগের বিজ্ঞাপন টিভিতে!

MI6 job advert

প্রতিচ্ছবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

প্রথমবারের মতো গোয়েন্দা নিয়োগে টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দিয়েছে ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআইসিক্স। টিভিতে যে বিজ্ঞাপনটি প্রচারিত হয়েছে এমন আরো অনেক বিজ্ঞাপন ব্রিটেনের টিভি ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রচারের পরিকল্পনা নিয়ে এগুচ্ছে এমআইসিক্স।

বৃহস্পতিবার থেকে এই বিজ্ঞাপন ব্রিটেনের টিভি চ্যানেলগুলোতে প্রচার শুরু হয়েছে। মূলত সংস্থাটিতে বিভিন্ন গোষ্ঠীর কর্মীদের সংখ্যা বাড়িয়ে তুলতেই এই অভিনব উপায় অবলম্বন করেছে বিশ্বখ্যাত গোয়েন্দা সংস্থাটি।

৩৬ সেকেন্ডের একটি বিজ্ঞাপন। শুরুটা দেখে মনে হবে যেন জেমস বন্ডের কোনো সিনেমা দৃশ্য। বিশাল আকৃতির হাঙর সাঁতরে বেড়াচ্ছে নীল রঙের পানিতে। রহস্যময় আবহসঙ্গীত শোনা যাচ্ছে। কিন্তু তারপর দেখা গেলো একজন নারী তার শিশুকে নিয়ে গেছেন লন্ডনের একটি অ্যাকুরিয়ামে।|বিজ্ঞাপনে এটাই বলার চেষ্টা করা হয়, গুপ্তচর মানেই হাঙরের সামনে বাহাদুরি দেখানো নয়। আমরা গুপ্তচর, কিন্তু আমরা আপনাদের মতোই সাধারণ মানুষ। ১১০ বছরের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো গোয়েন্দা নিয়োগে টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দিয়েছে ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআইসিক্স।সংস্থাটির প্রধান অ্যালেক্স ইয়ঙ্গার বলছেন, আমরা এমন মানুষজনকে গোয়েন্দা হিসেবে যাই যারা জীবনে কখনো এমন পেশায় যাওয়ার কথা চিন্তাও করেননি।

 জেমস বন্ড সিনেমার কারণে গোয়েন্দা শব্দটির সাথে যে রোমাঞ্চকর অনুভূতি জড়িয়ে রয়েছে সেজন্য হয়ত বহু মানুষ এই পেশায় যোগ দিতে চান।কর্মকর্তারা বলছেন, সম্প্রতি ব্রিটেনের একটি সলসবেরি শহরে রাশিয়ান একজন সাবেক গুপ্তচর ও তার মেয়েকে নার্ভ গ্যাস দিয়ে হত্যা চেষ্টার খবর সংবাদমাধ্যমে প্রকাশের পর থেকে সেখানে এমআইসিক্সে চাকরিতে আবেদনের পরিমাণ ব্যাপক বেড়ে গেছে।তবে তারা বলছেন, জেমস বন্ড হয়ে উঠতে চাইলে হবে না। তারা একজন সফল গুপ্তচরের খোঁজ আরো বিস্তৃত করবেন।

ব্রিটেনে একজন ইন্টেলিজেন্স অফিসারের বেতন শুরুর দিকে বছরে ৩৫ থেকে ৩৭ হাজার পাউন্ড। তবে তাকে নিয়োগের আগে ব্যাপক পরিমাণে যাচাই বাছাই প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হবে। কেননা, রাষ্ট্রের নিরাপত্তার গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্য নিয়ে তাকে কাজ করতে হবে। অথবা এমন অনেক তথ্য থাকবে তার হাতের নাগালে।

আগে ব্রিটেনে গোয়েন্দা হতে হলে প্রার্থী খাঁটি ব্রিটিশ কিনা এমন প্রমাণ করতে হতো। আবেদনকারীর বাবা মায়ের সেখানে জন্ম বাধ্যতামূলক ছিল। তবে এই ধারায় পরিবর্তন আসছে। অ্যালেক্স ইয়ঙ্গার বলছেন, সংস্থায় কর্মীদের মধ্যে বৈচিত্র্য আনতে জাতীয়তা বিষয়ক ধারা শিথিল করা হচ্ছে।

এমআইসিক্স সফল গুপ্তচরের খোঁজ আরো বিস্তৃত করবেন। সিনেমায় যা দেখা যায় বাস্তব তার থেকে ভিন্ন। গুপ্তচরেরা সমাজেরই মানুষ। বিশেষ করে নারী ও সংখ্যালঘুদের আকৃষ্ট করতে চাইছে এমআইসিক্স। কারণ সর্বশেষ ২০১৬ সালের তথ্যমতে, সংস্থাটিতে কৃষ্ণাঙ্গ, এশিয়ান বংশোদ্ভূত মানুষজন ও নারীদের সংখ্যা খুব কম।

এসএইচ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে