আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > সাকিব-রশীদ অলরাউন্ড নৈপূণ্যে ফাইনালে হায়দরাবাদ

সাকিব-রশীদ অলরাউন্ড নৈপূণ্যে ফাইনালে হায়দরাবাদ

সাকিব আল হাসান

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টস ডেস্ক:

আইপিএল-এ দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৩ রানে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে সাকিব আল হাসানের দল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এই ম্যাচে ব্যাটে-বলে উজ্জ্বল ছিলেন সাকিব আল হাসান ও রশীদ খান।

এদিন ব্যাট হাতে ২৪ বল খেলে ২৮ রান করেন সাকিব আল হাসান। বল হাতে তিন ওভার বল করে ১৬ রান দিয়ে একটি উইকেট শিকার করেন তিনি। রশীদ খান ব্যাট হাতে ১০ বল খেলে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। আর বল হাতে চার ওভার বল করে ১৯ রান দিয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেন। আগামী ২৭ মে ফাইনাল ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসের মুখোমুখি হবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়।

সাকিব-রশীদ অলরাউন্ড নৈপূণ্যে ফাইনালে হায়দরাবাদ

শুক্রবার কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের দেয়া ১৭৫ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে নয় উইকেট হারিয়ে ১৬১ রান সংগ্রহ করে কলকাতা নাইট রাইডার্স। দলের পক্ষে ৩১ বল খেলে ৪৮ রান করেন ক্রিস লিন। ১৩ বল খেলে ২৬ রান করেন সুনিল নারিন। ১৬ বল খেলে ২২ রান করেন নিতিশ রানা। ২০ বল খেলে ৩০ রান করেন শুবম্যান গিল।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের পক্ষে সাকিব আল হাসান তিন ওভার বল করে ১৬ রান দিয়ে একটি উইকেট শিকার করেন। চার ওভার বল করে মাত্র ১৯ রানে তুলে নিয়েছেন তিন উইকেট, সঙ্গে দুই ক্যাচ। প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচের পুরস্কারটা তুলে দেওয়া হয়েছে তার হাতেই।

দুই ওভার বল করে ১৬ রান দিয়ে দুইটি উইকেট শিকার করেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। চার ওভার বল করে ৩২ রান দিয়ে দুইটি উইকেট শিকার করেন সিদ্ধার্থ কাউল।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে ১৭৪ রান সংগ্রহ করে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। দলের পক্ষে ২৪ বল খেলে ২৮ রান করেন সাকিব আল হাসান। ৩৫ রান করেন ঋদ্ধিমান সাহা। ৩৪ রান করেন শিখর ধাওয়ান।

শেষ দিকে দশ বল খেলে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন রশীদ খান। কলকাতা নাইট রাইডার্সের পক্ষে শিভম মাভি ১টি, সুনিল নারিন ১টি, পীযুষ চাওলা ১টি ও কুলদীপ যাদব ২টি করে উইকেট নেন।

‘মোস্ট স্টাইলিশ’ সাকিব:

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) গতকাল শুক্রবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে প্রাক্তন দলের বিপক্ষে দারুণ উজ্জ্বল ছিলেন সাকিব আল হাসান। ব্যাট হাতে দলের বিপর্যয়ে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন, বল হাতে দেখিয়েছেন ঝলক। তার অসাধারণ সাফল্যের দিনে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৩ রানে পরাজিত করে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

এই নিয়ে চলমান আইপিএলে দুইবারই ঘরের মাঠে হায়দরাবাদের কাছে হেরেছে কলকাতা। ইনিংসের নবম ওভারে সাকিবকে বোলিংয়ে এনেছিলেন হায়দরাবাদ অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। প্রথমে দিয়েছিলেন সাত রান। পরের ওভারে আরও মিতব্যয়ী সাকিব, দিয়েছেন মাত্র চার রান। শেষ ওভারেও মাত্র চার রানই গুনেছিলেন সাকিব, তবে সঙ্গে নিয়েছেন একটি উইকেটও।

দুর্দান্ত ফর্মে থাকা কলকাতা অধিনায়ক দীনেশ কার্তিককে সোজা বোল্ড করে সাজঘরের রাস্তা দেখিয়ে দেন বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার। কোটার বাকি থাকা এক ওভার অবশ্য আর করতে হয়নি সাকিবকে। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ক তিন ওভার বল করে ১৬ রান খরচায় নিয়েছেন একটি।

এর আগে ব্যাট হাতে দলের বিপর্যয়ে সাকিবের সংগ্রহ ছিল ২৮ রান। রানআউটে কাটা না পড়লে হয়তো আরও বাড় সংগ্রহ হতো। ২৪ বলে ৪ চার হাঁকানো সাকিব বল-ব্যাটে দারুণ নৈপুণ্যে ম্যাচের ‘মোস্ট স্টাইলিশ’ খেলোয়াড়ও নির্বাচিত হন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ইনিংস: ১৭৪/৭ (২০ ওভার)

(ঋদ্ধিমান সাহা ৩৫, শিখর ধাওয়ান ৩৪, কেন উইলিয়ামসন ৩, সাকিব আল হাসান ২৮, দীপক হুদা ১৯, ইউসুফ পাঠান ৩, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট ৮, রশীদ খান ৩৪*, ভুবনেশ্বর কুমার ৫*; শিভম মাভি ১/৩৩, প্রসিধ কৃষ্ণা ০/৫৬, আন্দ্রে রাসেল ০/৯, সুনিল নারিন ১/২৪, পীযুশ চাওলা ১/২২, কুলদীপ যাদব ২/২৯)।

কলকাতা নাইট রাইডার্স ইনিংস: ১৬১/৯ (২০ ওভার)

(ক্রিস লিন ৪৮, সুনিল নারনি ২৬, নিতিশ রানা ২২, রবিন উথাপ্পা ২, দিনেশ কার্তিক ৮, শুবম্যান গিল ৩০, আন্দ্রে রাসেল ৩, পীযুশ চাওলা ১২, শিভম মাভি ৬, কুলদীপ যাদব ০*, প্রসিধ কৃষ্ণা ০*; ভুবনেশ্বর কুমার ০/৩৮, খলিল আহমেদ ০/৩৮, সিদ্ধার্থ কাউল ২/৩২, রশীদ খান ৩/১৯, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট ২/১৬, সাকিব আল হাসান ১/১৬)।

ফলাফল: ১৩ রানে জয়ী সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।

প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ: রশীদ খান।

আগামী রবিবার মাঠে গড়াবে আইপিএলের ১১তম আসরের ফাইনাল। মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে রাত ৮টায় চেন্নাই সুপার কিংসের মুখোমুখি হবেন সাকিবরা।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে