আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > ফ্লোরিডায় নেশাগ্রস্থ বাংলাদেশি এমপি’র লজ্জাজনক কাণ্ড

ফ্লোরিডায় নেশাগ্রস্থ বাংলাদেশি এমপি’র লজ্জাজনক কাণ্ড

ফ্লোরিডায় নেশাগ্রস্থ বাংলাদেশি এমপি'র লজ্জাজনক কাণ্ড

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

মহাকাশ জয়ের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো মহাকাশে উড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম নিজস্ব স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১। সমগ্র জাতি যখন ঐতিহাসিক সেই মাহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষায়, ঠিক তখনই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় লজ্জাজনক এক কর্মকাণ্ডের জন্ম দিয়ে ঠাট্টার খোঁড়াক হলেন বাংলাদেশেরই এক সংসদ সদস্য।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের গৌরবময় মুহূর্তের সাক্ষী হতে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় গিয়েছিলেন ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর) আসনের সংসদ সদস্য শরীফ আহমেদ। ফ্লোরিডার ককোয়া বিচ সিটির কোর্টিয়ার্ড বাই ম্যারিয়ট হোটেলে উঠেছিলেন তিনি। হোটেলটি ছিল সম্পুর্ন ধুমপানমুক্ত। গত ১০ মে রাতে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের আগের রাতে নেশাগ্রস্থ অবস্থায় সেই হোটেলেরই ৭২০ নম্বর স্যুইটে কার্পেটে আগুন লাগিয়ে ফেলেন ৪৮ বছর বয়সী এই সাংসদ।

এ প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের এনবিসি নিউজ হোটেল কর্তৃপক্ষের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ‘হোটেলটি নন-স্মোকিং, এটা জানার পরও সেখানে বসে  মাদক সেবন করেন তিনি। এরপর জ্বলন্ত সিগারেট দিয়ে আগুন লাগিয়ে দেন স্যুইটের কার্পেটে। এমনকি, এ অপরাধে ওয়াশিংটন ডিসির বাংলাদেশ দূতাবাস সাড়ে চারশ ডলার জরিমানাও করে তাকে।

ঘটনা প্রসঙ্গে কোর্টিয়ার্ড বাই ম্যারিয়ট হোটেলের ডিউটি ম্যানেজার ক্রিস স্মিথ এনবিসি নিউজকে বলেন, ওয়াশিংটন ডিসিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের নাম ও ঠিকানা ব্যবহার করে ৯ মে ওই স্যুইট ভাড়া করা হয় প্রতি রাত ২৫৯ ডলার হারে। স্যুইটটি নন-স্মোকিং অর্থাৎ ধূমপান একেবারেই নিষিদ্ধ। এ কথা জানার পরেও ওই স্যুইটের গেস্ট শরীফ আহমেদ স্মোক করেন। এরপর প্রজ্বলিত সিগারেট প্লাস্টিক ট্র্যাশে নিক্ষেপ করেন। সেটি ট্র্র্যাশ পুড়ে আগুন ছড়িয়ে পড়ে কক্ষের কার্পেটে।

মাদক সেবন ও ধুমপানের খেসারত দিলেন সাংসদ শরীফ

এনবিসি নিউজের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, আগুনের গন্ধ পেয়ে হাউজকিপার হন্যে হয়ে সন্ধান করেন এবং তা দেখতে সক্ষম হন বলে বড় ধরনের একটি অঘটন থেকে পুরো হোটেল রক্ষা পেয়েছে।

হোটেল ম্যানেজার ক্রিস স্মিথ জানান, বিষয়টি বাংলাদেশ সরকারের পদস্থ কর্মকর্তাসহ দূতাবাসকে অবহিত করা হয়েছে। কার্পেট পুড়ে ফেলাসহ অন্যান্য ক্ষতির জন্য মোট ৪৫০ ডলার জরিমানা করা হয়েছে। এ অর্থ আদায় করা হবে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে।

এ ব্যাপারে বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি সরাসরি কিছু না বলে শুধু মন্তব্য করেন, ‘এমন পরিস্থিতি সত্যি বিব্রতকর। লজ্জাজনকও।’

মাদক সেবন করে নেশাগ্রস্থ অবস্থায় ধুমপান ও হোটেলের স্যুইটে আগুন লাগানোর ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবদুস সামাদ আজাদও। তারা বলেন, ‘মহাশূন্য বিজয়ের গৌরবময় অধ্যায়ে এমন কাণ্ড খুবই দুঃখজনক। বিশেষ করে রাষ্ট্রীয় প্রতিনিধিদলের সদস্য হয়ে দূতাবাসের নামে নেয়া কক্ষে এমন কাণ্ড মেনে নেয়া যায় না।’

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সরকার দলীয় সাংসদ শরীফ আহমেদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি অভিযোগটি অস্বীকার করে এড়িয়ে যান।

উল্লেখ্য, কয়েকদফা পিছিয়ে দেশের প্রথম নিজস্ব স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ মহাশূণ্যের উদ্দেশ্যে উড়াল দেয় গত শুক্রবার (১১ মে)। মহাকাশ বিজয়ের ঐতিহাসিক সে দৃশ্য একদম কাছ থেকে অবলোকন করতে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় সরকারি প্রতিনিধিদলের কমপক্ষে ৪০ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে আর কেউ এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে শোনা যায়নি।

এএস/এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে