আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > বেপরোয়া যান চলাচল: এবার ভুক্তভোগী রোজিনা ও মাসুদা

বেপরোয়া যান চলাচল: এবার ভুক্তভোগী রোজিনা ও মাসুদা

rojina-begum

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

এবার বিআরটিসি বাসের চাপায় পা হারালেন নারী পথচারী। তার নাম মোসা. রোজিনা বেগম।

গতকাল রাত ৯টার দিকে বনানীর চেয়ারম্যানবাড়ি ফুটওভার ব্রিজের অদূরে আমতলী এলাকায় দুর্ঘটনার শিকার হন রোজিনা। তার ডান পা হাঁটুর নিচ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) ভর্তি করা হয়েছে। বিআরটিসির বাসচালক শফিকুলকেও আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আহত নারীর পায়ে অস্ত্রোপচার করছিলেন চিকিৎসকরা।
পঙ্গু হাসপাতালের পরিচালক গণি মোল্লা জানান, বাসচাপায় ওই নারীর ডান পা হাঁটুর নিচ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তার পায়ে একাধিক অস্ত্রোপচার করতে হবে।
বনানী থানার ওসি ফরমান আলী বলেন, গতকাল রাতে চেয়ারম্যানবাড়ি ফুটওভার ব্রিজের অদূরে ওই নারী ফুটপাত থেকে নেমে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় মহাখালী থেকে কাকলীমুখী বিআরটিসির একটি দ্বিতল বাস তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। পুলিশ সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যায়। ঘটনার জন্য দায়ী বিআরটিসির ওই বাসটি জব্দ করা হয়েছে। আটক করা হয়েছে চালককেও।
এদিকে গতকাল রাতেই রাজধানীর ধানমন্ডিতে বেপরোয়া ট্রাকের চাপায় মৃত্যু হয়েছে মোসা. মাসুদা (৩৫) নামে এক রিকশারোহীর। তিনি এসপিআরসি হাসপাতালের সেবিকা (নার্স)। স্বামীর নাম মো. জামাল। গ্রামের বাড়ি বরিশালের মুলাদী কৈলারচরে। শাহবাগ এলাকায় খাজা ভবনের পেছনে একটি টিনশেড বাসায় ভাড়া থাকতেন তিনি।

ধানমন্ডি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মিরাজ জানান, শুক্রবার রাতে অসুস্থ বেয়াই আরিফকে দেখতে রিকশাযোগে আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে যাচ্ছিলেন মাসুদা। রাত ৯টার দিকে ধানম-ি এলাকায় পৌঁছতেই বেপরোয়া একটি ট্রাক রিকশাটিকে চাপা দেয়।

এ সময় রিকশাচালক ছিটকে পড়ে বেঁচে গেলেও গুরুতর আহত হন মাসুদা। অচেতন অবস্থায় তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে। রাত পৌনে ১২টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মাসুদাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল দুই বাসের প্রতিযোগিতার মধ্যে পড়ে ডান হাত হারিয়ে মঙ্গলবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রাজীব হোসেন। এ ঘটনায় তোলপাড় হয় দেশজুড়ে। রাজধানীতে বেপরোয়া বাস চালানো ঠেকাতে চালকদের জরিমানাও করা হচ্ছে। কিন্তু তাতেও কমছে না এসব দুর্ঘটনা।

জেএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে