আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রাজনীতি > সিটি নির্বাচনের সেনা চায় বিএনপি

সিটি নির্বাচনের সেনা চায় বিএনপি

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচন নিয়ে নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গি ও ভাবনার কথা জানাতে নির্বাচন কমিশনে গিয়েছে বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় ছয় সদস্যের প্রতিনিধিদলটি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে. এম. নুরুল হুদার সঙ্গে বৈঠকে বসে।

বিএনপি আসন্ন গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণের সাতদিন আগে থেকে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে। ইসির কাছে দেওয়া লিখিত দাবিনামায় উল্লেখ করা হয়, দুই সিটি নির্বাচনের সাতদিন আগে থেকে নির্বাচনী এলাকায় টহলসহ প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে সেনা মোতায়েন করতে হবে।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুণ অর রশীদকে প্রত্যাহার করারও দাবি জানিয়েছে বিএনপি। তাদের যুক্তি, নির্বাচনী অনিয়মের কারণে ২০১৬ সালে কমিশন তাকে প্রত্যাহার করেছিল। তিনি ২০১১ সালে ৬ জুলাই তৎকালীন বিরোধীদলীয় চিপ হুইপ ও বিএনপি নেতা জয়নুল আবদীন ফারুকের ওপর হামলা করেছিলেন। এছাড়া নিরপেক্ষ কর্মকর্তাদের নির্বাচনী দায়িত্বে নিয়োজিত করার কথাও দাবিনামায় উল্লেখ রয়েছে।

প্রতিনিধি দলে নেতৃত্ব দিচ্ছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। প্রতিনিধিদলে আরো আছেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ ও যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন।

আগামী ১৫ মে খুলনা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এতে বিএনপি ও আওয়ামী লীগ অংশ নিচ্ছে। খুলনা সিটিতে মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু (ডানে) ও গাজীপুর সিটিতে প্রার্থী জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাসান উদ্দিন সরকার। এই নির্বাচন স্বচ্ছ ও সুষ্ঠু করতে দলের প্রস্তাবনা তুলে ধরা হবে বৈঠকে।

এদিকে, বিভিন্ন সময় বিএনপির নেতারা বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের অংশগ্রহণের বিষয়টি নির্ভর করছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির ওপর। এছাড়া খালেদা জিয়ার নির্বাচনে অংশ নেওয়া না নেওয়া নিয়েও রয়েছে ধোয়াশা।

তাঁকে মুক্তি না দিলে বিএনপি নির্বাচনে যাবে না। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপির চেয়ারপারসনকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত। এর পর থেকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা দিয়ে তাঁকে সেখানে রাখা হয়েছে। তাঁর জামিন আবেদন নাকচ করেছেন উচ্চ আদালত।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে