আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > আসছে বাজেটে নতুন কিছু নেই: অর্থমন্ত্রী

আসছে বাজেটে নতুন কিছু নেই: অর্থমন্ত্রী

আবুল মাল আব্দুল মুহিত

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে নতুন কিছু থাকছে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পারমর্শক কমিটির ৩৯তম সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, এই বাজেটে নতুন করে উদ্যোগ নেওয়া হবে না। পুরোনো উদ্যোগ গুলোকেই নতুনভাবে জোর দেওয়া হবে। ১০ বছর আগেও এনবিআরে কর দিতে এসে করদাতাকে হয়রানির শিকার হতে হত। এখন তা অনেক কমে এসেছে। ফলে গত দুই-এক বছর আগেও যেখানে করদাতার সংখ্যা ছিল ১৪ লাখ, এ বছর তা দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩০ লাখে।

তিনি বলেন, ১০ বছর আগে কর দেওয়ার ক্ষেত্রে যে ভিতি ছিল, সেটা এখন দূর হয়েছে। দেড় বছর আগেই টিআইএনধারীর সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে। এই টিআইএনধারীরদের নিয়ে বড় ধরনের পরিবর্তনের কথা ভাবছি।

আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, নির্বাচনের বছর হওয়াতে এবার বাজেট প্রণয়নের কাজ আমরা একটু আগেই শুরু করেছি। অন্যান্য বছর ফেব্রুয়ারি-মার্চে শুরু হলেও এবার আমরা জানুয়ারিতেই কাজ শুরু করে দিয়েছি। কারণ, আমি নিজেই চাই, এবারের নির্বাচনি বছরে নতুন কিছু উদ্যোগ যাতে নেওয়া যায়।

অর্থমন্ত্রী বলেন, পুরনো যে সব উদ্যোগ নিয়েছি, সেগুলো যাতে পারফেক্ট করা যায়। ভালো করা যায়। সেটাও আমার উদ্দেশ্য। দেশের রাস্তাগুলো নষ্ট হওয়ায় এখন মানুষের কষ্ট সবচেয়ে বেশি। রাস্তা ধ্বংস হওয়ায় মানুষের কষ্ট, এটা সবচেয়ে বেশি প্রকট। সারা দেশের রাস্তার অবস্থাই খারাপ। দেশের বদনামও এই জন্যই। আমি ব্যক্তিগতভাবে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বসে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবছি।

তিনি বলেন, অধিকাংশ রাস্তা একই মাপের হওয়ায় ব্যবসায়ীরা কন্টেইনার আনতে অসুবিধায় পড়েন। সারা দেশেই এটা একটা বড় সমস্যা। এ কারণে রাস্তাগুলো দ্রুত নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আমরা এর থেকে উত্তরণের চেষ্টা করছি। এজন্য রাস্তার গ্রেডিং আন্তর্জাতিক মানের করা হচ্ছে। গাড়ি চলাচলে যাতে দেশে একটি সিস্টেম প্রবর্তিত হয় সেজন্য রাস্তায় বড় গাড়ি চলাচলে নিয়ন্ত্রণ আনারও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

অর্থমন্ত্রী ই-কমার্স ব্যবসাকে আইটিএস খাতের অন্তর্ভুক্ত করারও ঘোষণা দেন। পাশাপাশি পণ্য সরাসরি রফতানির ক্ষেত্রে প্রণোদনার বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে বলে ব্যবসায়ীদের আশ্বস্ত করেন। একই সঙ্গে বেকারি ও কৃষিজাত পণ্যে ভ্যাট প্রত্যাহার করা হতে পারে বলেও আভাস দিয়েছেন তিনি। তবে, পোল্ট্রিতে কোনো প্রণোদনা দেওয়া সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

পরামর্শক কমিটির সভায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া সভাপতিত্ব করেন। সভায় এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ছাড়াও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক ও বর্তমান নেতারা বক্তব্য রাখেন।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে