আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > ম্যানসিটি-লিভারপুল ম্যাচে উত্তেজনার পারদ

ম্যানসিটি-লিভারপুল ম্যাচে উত্তেজনার পারদ

এ এস রোমার মুখোমুখি বার্সেলোনা

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টস ডেস্ক:

ক্লাব ফুটবলের অন্যতম মহারণ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের ফিরতি লেগের আজ দুটি ম্যাচ। যার একটিতে এ এস রোমার মুখোমুখি লিওনেল মেসির বার্সেলোনা। আর অন্য ম্যাচে ম্যানচেস্টার সিটির প্রতিপক্ষ লিভারপুল।

বার্সেলোনার ম্যাচের দিন অন্য সব ম্যাচই হয়ে যায় ফুটবলপ্রেমীদের কাছে গৌণ বিষয়। অন্য সব ম্যাচের কথা ভুলে ফুটবলপ্রেমীদরা বুদ হয়ে থাকে মেসির জাদু দেখার জন্য। কিন্তু ফুটবল বিধাতার কারসাজিতে আজকের দৃশ্যপটটা ঠিক তার উল্টো। অদৃশ্য শক্তিবলে ফুটবল দেবতা যেন ইচ্ছে করেই আজ গল্পটা অন্যভাবে সাজিয়েছেন। মেসি-বার্সেলোনার ম্যাচকে ঢেকে দিয়ে আজ উত্তেজনার অগ্নি-স্ফুলিঙ্গ ঝরাচ্ছে ম্যানসিটি ও লিভারপুলের ম্যাচ।

গত বুধবার প্রথম লেগে নিজেদের মাঠে ৪-১ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা। ফলে, ফুটবলপ্রেমীদের ধরেই নিয়েছেন বার্সেলোনা সেমিফাইনালে যাচ্ছে নিশ্চিত। নিজেদের মাঠে রোমা অবিশ্বাস্য কিছু করে ফেলবে, সেই সামর্থ রোমার নেই বললেই চলে। বার্সেলোনার মতো বিশ্বসেরা দলের বিপক্ষে অবিশ্বাস্য প্রত্যাবর্তনের গল্প লেখার স্বপ্ন রোমার কোচ-খেলোয়াড়েরাও দেখাতে সাহস পাচ্ছেন না।

ম্যানচেস্টার সিটির জন্যও অঙ্কটা একই রকম কঠিন। কারণ, প্রথম লেগে লিভারপুল জিতেছে ৩-০ গোলে। কিন্তু শক্তি-সামর্থে রোমার চেয়ে যোজন যোজন এগিয়ে ম্যানচেস্টার সিটি। আর প্রতিপক্ষ লিভারপুলও বার্সেলোনা নয়। সুতরাং রোমার কো-খেলোয়াড়েরা যে স্বপ্ন দেখার সাহস পাচ্ছেন না, ম্যান সিটির খেলোয়াড়-কোচরা তা পাচ্ছেন। সিটির স্প্যানিশ কোচ পেপ গার্দিওলা তো এক রকম ঘোষণার সুরেই বলেছেন, জান বাজি রেখে হলেও সেমিফাইনালে যাওয়ার চেষ্টা করবেন তারা।

গার্দিওলাকে অনুপ্রাণিত করছে অতীতের ম্যাচগুলো। মৌসুমে এ পর্যন্ত ১২টি ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে অন্তত ৩ বার করে বল ঢুকিয়েছেন গার্দিওলার শিষ্যরা। আগের ওই ম্যাচগুলোতে পারলে আজ কেন পারবে না?

গার্দিওলা এবং তার দল আত্মবিশ্বাসী, তারা পারবে। তাদের এই আত্মবিশ্বাসে জোর হাওয়া লাগাচ্ছে ইতিহাদ স্টেডিয়াম। নিজেদের মাঠে মৌসুমে প্রতিপক্ষকে ৫ গোলও দিয়েছে সিটি। আজকের ম্যাচটিও সেই ইতিহাদ স্টেডিয়ামেই। কোচ গার্দিওলা তাই সব অস্ত্র-গোলা বারুদ নিয়ে প্রস্তুত। প্রস্তুত গার্দিওলার শিষ্যরাও।

ম্যানসিটি-লিভারপুল ম্যাচে উত্তেজনার পারদ

শনিবার লিগ শিরোপা উৎসব করতে না পারলেও সিটির খেলোয়াড়েরা জানেন, দুদিন পরে হলেও লিগ শিরোপার উৎসব তারা করতে পারবে। কিন্তু আজ বড় ব্যবধানে জিততে না পারলেই বিদায় নিতে হবে স্বপ্নের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে। যে টুর্নামেন্টকে পাখির চোখ করে দলবদলের বাজারে কাড়ি কাড়ি টাকা ঢালা, গার্দিওলা কিছুতেই সেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আট থেকেই বিদায় নিতে রাজি নন।

প্রথম লেগের বড় হার কঠিন পরিস্থিতির মুখে ঠেলে দিয়েছে বটে। তবে নিজেদের শক্তি-সামর্থ দিয়ে সেই কঠিন পরিস্থিতিকে জয় করতে চাইছেন গার্দিওলা। শিষ্যদের স্পষ্ট ভাষায় বলে দিয়েছেন, ‘আমাদের জন্য আজকের ম্যাচটিই ফাইনাল। মনে রাখতে হবে, আমাদের স্বপ্নের কথা। এই ক্লাবের এক নম্বর স্বপ্ন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। এটা আমরা সবাই জানি। আমাদের এই স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার জন্য মাঠে সবকিছুই করতে হবে। সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করতে হবে। হাল ছাড়ছে চলবে না।’

কোচের এমন উদ্দীপ্ত অনুপ্রেরণা পেয়ে হাল ছাড়ছেও না সিটির খেলোয়াড়েরা। ‍ওদিকে প্রথম লেগে বড় জয়ের পর লিভারপুলও ২০০৮ সালের পর প্রথম বারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিফাইনালে উঠার স্বপ্নে বিভোর। স্বপ্নটাকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার জন্য প্রস্তুতও। নিজেদের মাঠে সিটি মরণকামড় বসাবে এটা জানেন লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ।

জানেন বলেই শিষ্যদের সাবধান করে দিয়েছেন, ‘আমাদের ভুলে যেতে হবে যে, আমরা এগিয়ে আছি। কারণ, সেটা মনে করলে গা-ছাড়া ভাব চলে আসবে। কাজেই আমাদের জন্য এটা আরেকটা নতুন ম্যাচ। সেমিফাইনালে উঠতে হলে এই ম্যাচে আমাদের সেভাবেই খেলতে হবে। মনে রাখতে হবে, সিটি ছেড়ে কথা বলবে না। ইতিহাদে ঝড় তুলবে তারা। স্বপ্ন পূরণ করতে হলে আমাদের সেই ঝড় সামাল দিতে হবে।’

দুই দলই রণ-সজ্জায় প্রস্তুত। প্রস্তুত নিজ নিজ স্বপ্নকে ধরে ফেলতে। দেুই দলের এই মরিয়া বাসনাই বলে দিচ্ছে, ইতিহাদে আগুনের স্ফুলিঙ্গই ছড়াবে আজ। বিশ্ব ফুটবলপ্রেমীরাও সেই অগ্নি-স্ফুলিঙ্গ দেখার জন্য অধীর হয়ে অপক্ষো করছে।

উল্লেখ্য, দুটি ম্যাচই শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে। রোমা-বার্সেলোনার ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করতে সনি টেন ১, ম্যান সিটি-লিভারপুলের ম্যাচটি দেখাবে সনি টেন ২।

এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে