আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > রাজনীতি > সরকারি এজেন্টদের দিয়ে ভিসির বাসভবনে হামলা: রিজভী

সরকারি এজেন্টদের দিয়ে ভিসির বাসভবনে হামলা: রিজভী

রুহুল কবির রিজভী

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

কোটা সংস্কারে আন্দোলনরত সাধারণ শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ভিন্নখাতে নিতেই সরকারী এজেন্টদের দিয়ে ভিসির বাসভবনে হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতেই সরকারের মদদে এ হামলা চালানো হয়েছে।

দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, ‘কোটা সংস্কারের দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর গত দু’দিনে পুলিশ ও ছাত্রলীগের হামলা ১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে হানাদার বাহিনীর হামলাকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর রোববার রাতভর কি নিষ্ঠুরভাবে গুলি করা হয়েছে, টিয়ারশেল মারা হয়েছে, নির্যাতন করা হয়েছে, হাসপাতালে শত শত ছাত্র-ছাত্রী যেভাবে রক্তাক্ত অবস্থায় কাতরাচ্ছিল তা দেখে সাধারণ মানুষের মধ্যে নিন্দার ঝড় বইছে। কোটা সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীরা দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলন করে আসছে, তাদের দাবি মানার জন্য বারবার সরকারের কাছে আহবান জানিয়ে আসছে কিন্তু তাতে সরকারের পক্ষ থেকে কোন কর্ণপাত করা হচ্ছে না। ‘

এসময় রিজভী বলেন, ‘ গতকালও আওয়ামী লীগের মন্ত্রী ও নেতারা তাদের সঙ্গে লোক দেখানো বৈঠক করলেন। তারা কি বললেন-একমাস পর বিষয়টি দেখবেন, কিন্তু আটক শিক্ষার্থীদের মুক্তি না দিয়ে বললেন কারা ভাংচুর ও হামলায় জড়িত তাদের পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ছাড়া হবে। গুলি, হামলা, ভাংচুরতো করেছে ছাত্রলীগ। গণমাধ্যমে সেসব খবর বেরিয়েছে, ছবি প্রকাশ হয়েছে তাদের ধরছেন না কেন? সাধারণ শিক্ষার্থীরাতো জানিয়ে দিয়েছে ভিসির বাসভবনে তারা হামলা করেনি। ঢাবির ক্যাম্পাসতো ছাত্রলীগের সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের দখলে ছিল। ঢাবি ক্যাম্পাসে এ মুহুর্তে ছাত্রলীগের সশস্ত্র সন্ত্রাসী ছাড়া আর কেউ হামলা, ভাংচুর করার সাহস রাখে কি? এ হামলা পরিকল্পিত।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের একজন কেন্দ্রীয় নেতা ক্যাম্পাসে প্রবেশের দশ মিনিটের মাথায় এই হামলা সংঘটিত হলেও এবং বিপুল সংখ্যক পুলিশ উপস্থিত থাকা সত্বেও ভিসি’র বাসভবনে দু’ঘন্টাব্যাপী হামলা রহস্যজনক। সাধারণ শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ভিন্নখাতে নিতেই সরকারী এজেন্টদের দিয়ে ভিসির বাসভবনে হামলা হয়েছে কি না এ প্রশ্ন এখন সাধারণ মানুষের মনে ঘুরপাক খাচ্ছে।

বিএনপির চেয়ারপার্সনের চিকিৎসা নিয়ে তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়াকে দেয়া সাজা আইনসঙ্গত নয়। মানসিক ও শারীরিক ভাবে কষ্ট দেয়ার জন্য কারাকর্তৃপক্ষ দ্বারা সরকার তার প্রতি অমাণবিক আচরণ করছে।

এছাড়া, সরকারের জিডিপি বৃদ্ধির ঘোষণা সম্পূর্ণ মিথ্যাচার সেটি আন্তর্জাতিক ভাবে প্রমাণিত হয়েছে বলেও জানান রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপাসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা ও জাল নথির সাজানো মামলায় কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়েছে। ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের দিয়ে তাকে চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত করাসহ নানাভাবে কষ্ট দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘এমনকি সরকারী মেডিকেল বোর্ড বেগম জিয়াকে অর্থপেডিক বেড দেয়ার সুপারিশ করলেও এখন পর্যন্ত সেটি সরবরাহ করা হয়নি। হাইকোর্ট জামিন দেয়ার পরও শুধুমাত্র বিভিন্নভাবে কষ্ট দিতেই সরকারের নির্দেশে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত করে রাখা হয়েছে। আমি দলের পক্ষ থেকে আবারো অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবী করছি।’

রিজভী আরো বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপার্সন ও তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে মিথ্যা ও জাল নথির সাজানো মামলায় কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়েছে। ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের দিয়ে তাকে চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত করাসহ নানাভাবে কষ্ট দেয়া হচ্ছে। এমনকি সরকারী মেডিকেল বোর্ড বেগম জিয়াকে অর্থপেডিক বেড দেয়ার সুপারিশ করলেও এখন পর্যন্ত সেটি সরবরাহ করা হয়নি। হাইকোর্ট জামিন দেয়ার পরও শুধুমাত্র বিভিন্নভাবে কষ্ট দিতেই সরকারের নির্দেশে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত করে রাখা হয়েছে। আমি দলের পক্ষ থেকে আবারো অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবী করছি।’

এই সংবাদ সম্মেলন উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল সালাম আজাদ, কেন্দ্রীয় নেতা রফিকুল কবির, তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ ।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে