আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা যেন থেমে না যায়: প্রধানমন্ত্রী

দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা যেন থেমে না যায়: প্রধানমন্ত্রী

স্বাধীনতা পদক প্রদান অনুষ্ঠান ২০১৮ [১]

 প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতিসংঘের তিনটি শর্ত পূরণ করে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা অর্জন করেছে। সরকারের ধারাবাহিকতার কারণেই এই স্বীকৃতি অর্জন সম্ভব হয়েছে। উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রা যেনো থেমে না যায় সেদিকে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বানও জানান তিনি। এবছর মুক্তিযুদ্ধ, চিকিৎসা, সমাজসেবা, খাদ্যনিরাপত্তা, সাহিত্য, সংস্কৃতি এবং কৃষিতে অসামান্য অবদানের জন্য ১৮ বিশিষ্টজনকে স্বাধীনতা পদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

স্বাধীনতা পদক প্রদান অনুষ্ঠান ২০১৮ [২]

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম, রাজনীতি, সাংস্কৃতিক আন্দোলন, সাহিত্য, চিকিৎসাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য এবছরও ১৮ বিশিষ্ট ব্যাক্তিকে রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা স্বাধীনতা পদক প্রদান করা হয়। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে পুরষ্কারপ্রাপ্ত প্রত্যেককে একটি স্বর্ণপদক, তিন লক্ষ টাকা ও একটি সম্মাননাপদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী জাতি হিসেবে বাংলাদেশ কারো কাছে হাত পেতে নয় বরং বিশ্বে মাথা উঁচু করে চলবে এবং নিজস্ব সম্পদ দিয়েই আত্মনির্ভরশীল হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ইনশা আল্লাহ বাংলাদেশ একদিন জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবেই গড়ে উঠবে এবং বিশ্বে মাথা উঁচু করে চলবে। কারো কাছে হাত পেতে নয়, আমাদের যতটুকু সম্পদ তাই দিয়েই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি, এগিয়ে যাব এবং এ দেশকে আমরা আরো সম্মানজনক অবস্থানে নিয়ে যাব।’

স্বাধীনতা পদক প্রদান অনুষ্ঠান ২০১৮ [৩]

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি চাই আমাদের স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে মুক্তিযুদ্ধের প্রেরণা নিয়ে এই বাংলাদেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে, সে যাত্রা যেন থেমে না যায়। এই যাত্রা যেন অব্যাহত থাকে। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে আমরা মধ্যম আয়ের দেশ আর ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।’

সরকার দেশের বিদ্যুৎ ও অবকাঠামোখাতসহ সকল ক্ষেত্রেই উন্নয়ন নিশ্চিত করে  সোনারবাংলা গড়ে তুলতে করতে কাজ করে যাচ্ছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যারা অবদান রেখে দেশকে সমৃদ্ধ করছে তাদেরকে সম্মানিত করে রাষ্ট্রও সম্মানিত হতে চায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের একটি মানুষও মৌলিক অধিকার বঞ্চিত থাকবে না। উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রা যেন থেমে না যায় সেদিকে সবাইকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসেবেই গড়ে উঠবে এবং বাঙালি বিশ্বে সব সময় মাথা উঁচু করে চলবে বলেও মনে করেন প্রধানমন্ত্রী।

স্বাধীনতা পদক প্রদান অনুষ্ঠান ২০১৮ [৪]

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য সম্মাননা পান- প্রয়াত কাজী জাকির হাসান, শহীদ বুদ্ধিজীবী এম এম এ রাশীদুল হাসান, প্রয়াত শংকর গোবিন্দ চৌধুরী, এয়ার ভাইস মার্শাল সুলতান মাহমুদ বীরউত্তম, প্রয়াত এম আব্দুর রহিম, প্রয়াত ভূপতি ভূষণ চৌধুরী ওরফে মানিক  চৌধুরী, শহীদ লেফটেন্যান্ট মো. আনোয়ারুল আজিম, প্রয়াত হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী, শহীদ আমানুল্লাহ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, শহীদ মতিউর রহমান মল্লিক, শহীদ সার্জেন্ট জহরুল হক ও আমজাদুল হক।

সংস্কৃতির ক্ষেত্রে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এবং কৃষি সাংবাদিকতায় চ্যানেল আইয়ের পরিচালক (বার্তা) শাইখ সিরাজকে এ সম্মাননা দেয়া হয়েছে। এছাড়া অধ্যাপক ডা. এ কে এমডি আহসান আলী চিকিৎসাবিদ্যায়, অধ্যাপক এ কে আজাদ খান সমাজসেবায়, সেলিনা হোসেন সাহিত্যে এবং ড. মো. আব্দুল মজিদ খাদ্য নিরাপত্তায় এ পুরস্কার পান। ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ১৯৭৭ সাল থেকে প্রতি বছর এ পুরস্কার দিচ্ছে সরকার।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে