আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > প্রেমাদাসার ড্রেসিং রুমের দরজা ভেঙেছিলেন সাকিব!

প্রেমাদাসার ড্রেসিং রুমের দরজা ভেঙেছিলেন সাকিব!

প্রেমাদাসার ড্রেসিং রুম

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টস ডেস্ক:

নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার মধ্যকার অলিখিত সেমি ফাইনাল ম্যাচটি নিয়ে কম ‘লড়াই’ হয়নি। শুক্রবার (১৬ মার্চ) মাঠে শ্বাসরুদ্ধকর সেই লড়াইয়ের সাথে ছিল দুই দলের খেলোয়াড়দের বাকবিতন্ডায় জড়ানো পর্যন্ত। ঘটেছে আক্রমণাত্মক শারিরীক সংঘর্ষ, ধাক্কধাক্কি, আঙুল তুলে হুমকি দেয়ার মত ঘটনাও।

প্রেমাদাসার ড্রেসিং রুম ২

এসব শেষ হয়েছে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ দলের ড্রেসিংরুমে কাচের ভাঙা দরজা দিয়ে। এটা মাঠের উত্তেজনার ফল নয়। আসল ঘটনা হলো, ভাঙচুর নয়, অসাবধানতাবশত ভেঙে গেছে।

সেদিন ৩০ হাজার শ্রীলঙ্কান মন খারাপ করে ঘরে ফিরেছেন। নাটকীয়ভাবে বাংলাদেশের কাছে হেরে যাবার পর কেউ কেউ কেঁদেছেন। ঘরের মাঠের টুর্নামেন্ট, অথচ ফাইনালে তারা নেই, এটা মানতেই পারেনি শ্রীলঙ্কান দর্শকরা। এদিকে দারুণ জয়ের পরেও বাংলাদেশ দলকে বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে ফেলে দিয়েছে একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা। এমনিতে নো বল নিয়ে অনেক বেশি প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন সাকিবরা। তারপর আবার পেমাদাসার যে ড্রেসিং রুমে ব্যবহার করেছিল বাংলাদেশ দল, তার দরজা ভাঙা পাওয়া গেছে। তখন প্রশ্ন উঠেছিল, কে বা কারা ভেঙেছে এই ড্রেসিং রুমের দরজা?

ঘটনার চার দিন পর লঙ্কান সংবাদমাধ্যম ‘দ্য আইল্যান্ড’ দাবি করছে, এই ঘটনার নেপথ্যে রয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। দ্বীপরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট সংবাদপত্রের প্রতিবেদন অনুযায়ী, কর্মীরাই নাকি জানিয়েছেন সাকিব ভেঙেছেন ড্রেসিং রুমের দরজা। জোরপূর্বক ড্রেসিং রুমের দরজা বন্ধ করতে গিয়েই বিপত্তি ঘটিয়েছেন বাঁহাতি এ অলরাউন্ডার।

প্রেমাদাসার ড্রেসিং রুমের দরজা ভেঙেছিলেন সাকিব

প্রতিবেদনটিতে আরও বলা হয়েছে, সেদিন ম্যাচ চলাকালীন মেজাজও হারাতে দেখা গিয়েছিল সাকিবকে। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে চটে গিয়ে সতীর্থদের মাঠ ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। নিজের মেজাজ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে ফিরে যাওয়ার সময় ড্রেসিং রুমের দরজা প্রবল জোরে বন্ধ করতে গিয়েছিলেন সাকিব। আর তাতেই ভেঙে যায় দরজার কাচ।

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের পরদিন আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থাগুলো ড্রেসিং রুমের ভাঙা কাচের ছবি প্রকাশ করে। কে বা কারা ভেঙেছিলেন ড্রেসিং রুমের কাচের দরজা, তা নিয়ে অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগ শুরু হয়ে গিয়েছিল। সে সময় কিছু সংবাদমাধ্যমের দাবি ছিল, বাংলাদেশি ক্রিকেটাররাই নাকি ড্রেসিং রুমে ভাঙচুর করেছেন!

প্রেমাদাসার গ্রাউন্ড স্টাফদের আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিলের পর মাঠের ক্যামেরায় পাওয়া ভিডিও ফুটেজ যাচাই -বাছাই করেন ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড। কথা বলেছেন ড্রেসিং রুমে নিয়োজিত ক্যাটারিং স্টাফদের সঙ্গেও। সেই স্টাফরাও বলেছেন, বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের মাধ্যমেই ভেঙেছে ড্রেসিং রুমের দরজা। ‘দ্য আইল্যান্ডের’ দাবি, ওই ক্যাটারিং স্টাফদের একজনই জানিয়েছেন দরজাটি ভেঙেছেন সাকিব।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে