আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > লক্ষ্য এবার শিরোপা

লক্ষ্য এবার শিরোপা

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নিদাহাস ফাইনাল ম্যাচের প্রস্তুতি

প্রতিচ্ছবি স্পোর্টস ডেস্ক:

বাংলাদেশের সামনে প্রথমবারের মতো ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ের হাতছানি! শ্রীলঙ্কার কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ভারতকে হারাতে পারলেই প্রাপ্তির খাতায় নতুন ইতিহাস যোগ করবে লাল-সবুজের সৈনিকেরা। আরেকবার ক্রিকেট বিশ্ব দেখবে ‘নাগিন নাচ’।

ক্রিকেটের ছোট ফরমেট টি-টোয়েন্টিতে এখনো ভারতকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। সাতবারের মুখোমুখি লড়াইয়ে প্রতিবারই সঙ্গী হয়েছে হতাশা। কয়েকটি ম্যাচে জয়ের কাছাকাছি গিয়েও আক্ষেপে পুড়তে হয়। সবশেষ চলমান ট্রাইনেশন টি-২০ সিরিজে দ্বিতীয়বারের দেখাতেও জেগেছিল জয়ের সম্ভাবনা।

আজ রোববারের (১৮ মার্চ) হাইভোল্টেজ ফাইনালের মধ্য দিয়ে ফের একে অপরকে চ্যালেঞ্জ জানাবে। খেলা শুরু বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। উদ্বোধনী ম্যাচ লঙ্কানদের কাছে হারের পর টানা তিন জয়ে ফাইনালে ওঠে কোহলি-ধোনিবিহীন ভারত। স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে দুই ম্যাচেই হারিয়ে শিরোপা নির্ধারণীতে পা রাখে টিম বাংলাদেশ।

শুক্রবারের (১৬ মার্চ) ফাইনাল নির্ধারণী ম্যাচে ২ উইকেট ও ১ বল হাতে রেখে ১৬০ রানের লক্ষ্য টপকে উল্লাসে মাতে টাইগাররা। ১৮ বলে ৪৩ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংসে দলকে ফাইনালের মঞ্চে নিয়ে যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ‘নো’ বল ইস্যুতে মাঠ, মাঠের বাইরের উত্তাপের পর নাগিন নৃত্যে শ্বাসরুদ্ধকর রোমাঞ্চকর জয় উদযাপনে মাতে পুরো দল।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলে দলকে ফাইনালে তোলার পর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের লড়াকু পারফরম্যান্সে ফাইনাল সামনে রেখে পুরো বাংলাদেশ দলের মনোবল এখন চাঙা। ভারতের সামনে বাংলাদেশকে টানা তিন ম্যাচে হারিয়ে শিরোপা জেতার সুযোগ।

পাল্টা জবাব দিয়ে ট্রফি উঁচিয়ে ধরার স্বপ্ন দেখছেন সাকিব-তামিম-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা। সব মিলিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এক ফাইনাল উপভোগ করবেন দর্শকরা। দু’দলই যে চ্যাম্পিয়ন ভিন্ন কিছু ভাবছে না। বাংলাদেশের লড়াকু মনোভাব নিয়ে যত ভয় ভারতের।

শনিবার (১৭ মার্চ) ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে এসে তেমনটাই প্রকাশ করেন দিনেশ কার্তিক, বিশেষ করে উপমহাদেশের কন্ডিশনে, বাংলাদেশ খুবই ভালো দল। লেগে থাকার মানসিকতার জন্য তারা পরিচিত।

সত্যিই কঠিন চেষ্টা করে। এমন একটি টিম যারা টেস্ট স্ট্যাটাস পেয়েছে খুব বেশি বছর হয়নি, সেখান থেকে ক্রিকেটের সব ফরমেটেই তারা এগিয়ে গেছে এবং ভালো করছে।

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করে নাগিন নাচে মাতোয়ারা বাংলাদেশ দল কাগজে-কলমে হয়তো এগিয়ে থাকবে ভারত। কিন্তু বাংলাদেশের কাছে হেরে গেলে যে সমর্থকদের সামনে লজ্জায় পড়তে হবে সেই ইঙ্গিতও দিয়ে রেখেছেন কার্তিক।

তার কথায়, পরিষ্কার করে বলা যাক, ভারত একটি ক্রিকেটীয় দেশ। যে সারির দল নিয়েই খেলি না কেন এখানে জয় প্রত্যাশিত থাকে। যখন আমরা বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলি এবং জিতি তখন এটা এমন হয় যে ‘ঠিক আছে, তোমরা বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতেছো।

কিন্তু যদি আমরা হেরে যায় সবাই বলবে, তোমরা বাংলাদেশের কাছে হেরেছো। এটা তোমরা কি করলে? আমি নিশ্চিত যে এমনটাই হবে। আমাদের অধিনায়ক রোহিত শর্মা বলেছে কয়েকজন খেলোয়াড়কে মিস করলেও গত এক বছরে দল যেভাবে খেলেছে আমরা ঠিক সেভাবেই খেলার দিকে চোখ রাখছি-যোগ করেন কার্তিক।

২০১৫ বিশ্বকাপের সেই ঘটনাবহুল কোয়ার্টার ফাইনালের পর থেকেই বাংলাদেশ-ভারত ক্রিকেটীয় লড়াইয়ের আবহে বাজে যুদ্ধের দামামা। প্রতিটি ম্যাচেই থাকে উত্তেজনার রসদ। এবারের প্রেক্ষাপট একটু অন্যরকম হলেও মঞ্চটা বারুদ ছড়ানোর জন্য একেবারে আদর্শ। শ্রীলংকায় ত্রিদেশীয় টি ২০ সিরিজ নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে আজ বাংলাদেশের সামনে ভারত।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে