আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > বিনোদন-সংস্কৃতি > ইরফানের স্নায়ুকোষে টিউমার, চিকিৎসা বিদেশে

ইরফানের স্নায়ুকোষে টিউমার, চিকিৎসা বিদেশে

ইরফান খান

প্রতিচ্ছবি বিনোদন ডেস্ক:  

‘বিরল’ রোগে ভুগছেন বলিউড অভিনেতা ইরফান খান। কয়েকদিন আগে এমন খবর নিজেই জানিয়েছেন তিনি। তবে তিনি ঠিক কী রোগে আক্রান্ত তা বলেননি। বলেছিলেন আরও একটু অপেক্ষা করতে। অবশেষে সেই অপেক্ষার অবসান হলো। নীরবতা ভেঙে অসুস্থতা নিয়ে মুখ খুলেছেন এই অভিনেতা।

গতকাল শুক্রবার এক টুইটে ইরফান জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি ‘নিউরোএন্ড্রেক্রেইন টিউমার’ বা ‘স্নায়ুকোষে টিউমারে’ আক্রান্ত।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহে এক টুইটে ‘বিরল রোগে’ আক্রান্তের কথা জানান ইরফান খান।  সে সময় তিনি রোগ সম্পর্কে কিছু না জানালেও পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর তা জানানোর আশ্বাস দিয়েছিলেন।

অসুস্থতা নিয়ে ইরফান খানের টুইট বার্তা

ইরফান খান এই টুইটে লিখেছেন, তার নিউরোএন্ড্রেক্রেইন টিউমারের ডায়াগনোসিস করা হয়েছে। যদিও এটি অনেক কঠিন ছিল, তবে চারপাশের মানুষের ভালোবাসা এবং সমর্থন তাকে শক্তি জুগিয়েছে।

‘পিকু’ অভিনেতা বলেন, ‘চিকিৎসার জন্য আমাকে দেশের বাইরে নেওয়া হবে এবং এ সময়টায় সবাই আমার জন্য প্রার্থনা করুন।’

ইরফান আরও বলেন,  নিউরো মানেই সবসময় মস্তিষ্ক সম্পর্কিত নয় এবং গুগল করে সবসময় সব বিষয় জানাও যায় না। তাই সঠিক তথ্য জানার জন্য সবাই যেন তাঁর জন্য অপেক্ষা করেন।

ফের জীবনের ছন্দে ফিরলে জীবনের বাকি গল্পটুকু ভক্তদের বলবেন বলেও জানান ইরফান খান।

চিকিৎসা বিজ্ঞান বলছে, ‘নিউরোএন্ড্রেক্রেইন টিউমার’ বা ‘স্নায়ুকোষে টিউমার’ হলো ক্যান্সারের প্রথম স্টেজ। টিউমার তখনই তৈরি হয়, যখন একটি সুস্থ কোষ পরিবর্তিত হয়ে নিয়ন্ত্রণের বাইরে বেড়ে ওঠে। এর ফলে তৈরি হয় একটি মাংস পিণ্ড। সেই মাংস পিণ্ডটি ক্যান্সার হতে পারে, আবার বিপজ্জনক নয় এমনও হতে পারে। ক্যান্সার সঠিক সময় ধরা না পড়লে টিউমারটি দ্রুত বেড়ে ওঠে এবং শরীরের অনেকটা অংশে ছড়িয়ে পড়ে। তবে বিপজ্জনক না হলে, টিউমার বাড়লেও শরীরে ছড়িয়ে পড়ে না। এ ছাড়া এ ধরনের টিউমার অস্ত্রোপচার করেও সরিয়ে দেওয়া যায়।

 

এএম/এআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে