আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > পারমাণবিক বোমা বানাবে সৌদি আরব

পারমাণবিক বোমা বানাবে সৌদি আরব

মোহাম্মদ বিন সালমান

প্রতিচ্ছবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

হুমকি মোকাবেলায় দ্রুত নিজস্ব পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি গড়ে তুলতে নিজ দেশের সক্ষমতার কথা জানিয়েছেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী ইরান পারমাণবিক বোমা বানানোর সক্ষমতা অর্জন করলে সৌদি আরবও পিছিয়ে থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

মার্কিন টেলিভিশন নেটওয়ার্ক সিবিএস নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৌদি প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান ইরানের প্রতি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বলে খবর বিবিসি ‘র।

তিনি বলেন, তার দেশ পারমাণবিক অস্ত্র অর্জনে আগ্রহী নয়। “কিন্তু ইরান যদি একটিও পারমাণবিক বোমা তৈরি করে ফেলে, তাহলে কোনো সন্দেহ নেই, আমরাও যত দ্রুত সম্ভব তাদের অনুসরণ করবো”।

প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রাচ্যে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে সুন্নিপ্রধান সৌদি আরব ও শিয়াপ্রধান ইরানের দ্বন্দ্ব বহু পুরনো। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সিরিয়া ও ইয়েমেনের যুদ্ধকে কেন্দ্র করে এ উত্তেজনা আরও প্রকট আকার ধারণ করেছে।

এর আগে, ২০১৫ সালে ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে চুক্তির সূত্র ধরে পারমাণবিক কর্মসূচি সীমিত করে আনার ঘোষণা দিয়েছিল ইরান; ওই চুক্তিকে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সফলতা হিসেবে দেখছিলেন পর্যবেক্ষকরা।

মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত সৌদি আরব ১৯৮৮ সালেই পারমাণবিক অস্ত্রের বিস্তার রোধবিরোধী চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে; যদিও পাকিস্তানের পারমাণবিক কর্মসূচিতে তাদের বিনিয়োগ আছে বলে ধারণা করা হয়।

পারমাণবিক অস্ত্রের বিস্তার রোধবিরোধী চুক্তিতে ইরানেরও স্বাক্ষর আছে; যদিও সৌদি আরব ও যুক্তরাষ্ট্রের আশঙ্কা, গোপনে পারমাণবিক বোমা নির্মাণের পথেই হাঁটছে তেহরান।

ইরান বলছে, তাদের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ ও প্লুটোনিয়াম উৎপাদনের লক্ষ্য শান্তিপূর্ণ। ২০১৫ সালে ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে চুক্তিতে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার শর্তে শান্তিপূর্ণ এ কর্মসূচির লাগামও অনেকখানি কমিয়ে আনার দাবি করছে তারা।

ট্রাম্প এ চুক্তি থেকে সরে যেতে চাইলেও ইউরোপীয় মিত্ররা তাতে আপত্তি জানিয়ে আসছে।

মধ্যপ্রাচ্যে একমাত্র ইসরায়েলকেই পারমাণবিক অস্ত্রধারী দেশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়; যদিও এ বিষয়ে কখনোই মুখ খোলেনি তেল আবিব।

জেএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে