আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > চীনের ‘আমৃত্যু’প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং

চীনের ‘আমৃত্যু’প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং

শি জিন পিং

প্রতিচ্ছবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

সংবিধান থেকে প্রেসিডেন্টের মেয়াদ সংক্রান্ত ধারা তুলে নিল চীন। এর ফলে বর্তমান প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংয়ের ক্ষমতা কোনো মেয়াদের মধ্যে আর আবদ্ধ রইলো না। এখন তিনি আজীবন প্রেসিডেন্ট থাকতে পারবেন।

আগের আইন বহাল থাকলে সর্বোচ্চ ২০২৩ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারতেন শি। কিন্তু প্রেসিডেন্টের মেয়াদের বিধান তুলে নেওয়ায় আর কোনো আইনি বাধা থাকল না।

রোববার চীনের গ্রেট হল অব দা পিপলস পার্লামেন্টের বার্ষিক অধিবেশনে সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাবের ওপর ভোটাভুটি হয়।

এর ফলে শি জিন পিং এখন সর্বময়, অসীম, নিরঙ্কুশ ও তুলনারহিত ক্ষমতার অধিকারী এক প্রেসিডেন্ট হয়ে উঠলেন। মৃত্যু ছাড়া বা শারীরিক অক্ষমতা ছাড়া আর কোনো কারণে তাকে তার পদ থেকে কেউ নামাতে পারবে না।

পিপলস কংগ্রেসের প্রায় তিন হাজার প্রতিনিধির মধ্যে দুই হাজার ৯৬৪ জন প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেন। দুই জন প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেন এবং তিনজন ভোট দানে বিরত থাকেন।

গত মাসে চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি সংবিধান সংশোধনের ওই প্রস্তাব আনার পর তা যে পাস হবে, তা নিয়ে কোনো সন্দেহই ছিল না।

তবে চীনের অনেক নাগরিক অনির্দিষ্টকালের জন্য এক ব্যক্তির হাতে ক্ষমতা চলে যাওয়ার বিষয়টি পছন্দ করেননি।

১৯৯০ এর দশকে চীন প্রেসিডেন্ট পদে থাকার সীমা বেঁধে দেয়। সংবিধান অনুযায়ী দেশটির কংগ্রেস চীনের সর্বোচ্চ আইন পরিষদ।

সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাব ওঠার পর দেশটির সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম উইবুতে একজন লেখেন, ‘যদি দুই মেয়াদ যথেষ্ট না হয়, তাহলে তারা তিন মেয়াদের কথা লিখতে পারে। কিন্তু সেখানে অবশ্যই একটা সীমা থাকতে হবে, একেবারে মুক্ত করে দেওয়া ভালো হবে না।’

সূত্র: রয়টার্স 

জেএস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে