আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > জাফর ইকবালকে ছুরিকাঘাত, প্রতিবাদ-নিন্দায় সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড়

জাফর ইকবালকে ছুরিকাঘাত, প্রতিবাদ-নিন্দায় সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড়

জাফর ইকবালকে ছুরিকাঘাত, প্রতিবাদ-নিন্দায় সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড়

আহমেদ এফ রুমী:

দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ, সাহিত্যিক, লেখক, কলামিস্ট ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে ছুরিকাঘাতের প্রতিবাদে ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বইছে নিন্দার ঝড়।

ফেসবুক, টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হামলার প্রতিবাদ ও হামলাকারীর দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন ছাত্র-শিক্ষক, গণমাধ্যমকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

আর্য সূবর্ণ নামের একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন- যে ভূখন্ডে কোন প্রগতিশীলের আবাস নেই, কবি ও সাহত্যিকদের স্থান নেই, সেই ভূখণ্ড অভিশপ্ত, কলঙ্কের কালিমায় লিপ্ত।
সরি! #জাফর স্যার

হাসান শান্তনু নামের আরেক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন- বরেণ্য শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল আমাদের আহত পতাকার প্রতীক। এবার তাঁর ওপর সেই ভয়াল কায়দায় পেছনের দিক থেকে চাপাতি দিয়ে হামলা। আজ শনিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। এর আগে একই কায়দার হামলার শিকার হন নন্দিত কবি শামসুর রাহমান, অধ্যাপক ড. হুমায়ন আজাদ, ড. অভিজিৎ রায়, অনন্ত বিজয় দাশরা। এভাবে আর কতো?

প্রিয় বাংলাদেশ, রাষ্ট্র হিসেবে তোমার চরিত্রকে পুরোপুরি মধ্যযুগীয় বলে চিহ্ন করতে বর্বরতার ধারাবাহিকতা চলছে। এবার রুখে দাঁড়াও, গর্জে ওঠো।

সাব্বির মাহমুদ নামে একজন লিখেছেন, ডক্টর জাফর ইকবালের বোঝা উচিৎ ছিল বাংলাদেশ তাঁর জন্য নয়। তবে হয়তো আজ ছুরিকাহত হয়ে ওসমানী মেডিকেলের বেডে শুয়ে কাতরাতে হতো না।

একইভাবে সিনিয়র সাংবাদিক ফারজানা কবির খান তার স্ট্যাটাসে বলেছেন, So, what do you think, someone from Atheists has stabbed Dr. Md. Jafor Iqbal? Or maybe some theists can also think that, it’s the conspiracy of the Atheists.
You know what? **** yourselves.

এই যে তাঁবেদার আপা-ভাইয়েরা, আপনাদের আল্লাহর ওয়াস্তে মার্কা ভাষণ আর শান্তির ধর্ম তো, জাফর ইকবাল স্যারকেও ছাড়লো না। এখন কয়েকদিন ধরে বলতে থাকেন আর প্রমাণ করতে থাকেন, ইহা শান্তির ধর্ম। একজন সন্ত্রাসীর কারণে সকলকে সন্ত্রাসী ভাববেন না। ব্লা ব্লা আর ব্লা।

সুস্থ হয়ে ফিরে আসুন স্যার। ঐ পোড়া দেশের একজন জাফর ইকবাল বড্ড প্রয়োজন।

এদিকে, সিনিয়র রিপোর্টার ও  ফ্রিল্যান্স কলামিস্ট শরিফুল হাসানের ফেসবুক পেইজ থেকে জানা গেছে জাফর ইকবাল এখন আশঙ্কামুক্ত।

তিনি এ বিষয়ে পোস্ট দিয়ে লিখেছেন, ‘অধ্যাপক জাফর ইকবালের উপর হামলা হয়েছে। সেই চাপাতি। সেই পেছন থেকে হামলা। পু‌লিশ, ছাত্রছাত্রী সবার সাম‌নে এমন হামলা। মনটা বি‌ষি‌য়ে আছে। আশার কথা স্যার আশঙ্কামুক্ত। তবুও দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন এই দোয়া করি স্যার। আর হামলার নেপ‌থ্যে কারা সেটা দ্রুত খুঁ‌জে বের করা হোক।’

সিনিয়র সাংবাদিক জ.ই. মামুন লিখেছেন, জাফর ইকবালের জন্য শুভ কামনা। এই তো সেদিন বইমেলা থেকে ফেরার সময় দেখি পথের ওপর জটলা। কৌতুহলী চোখ ভেতরে খুঁজে পায় ক্ষুদে ভক্তদের সঙ্গে ছবির জন্য রাস্তার ওপর বসে পড়েছেন ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। কি মনে করে অনেকের মতো আমিও তাঁর একটি ছবি তুললাম। তিনি অন্ধকার আর ভিড়ের মধ্যেও আমাকে খেয়াল করলেন। হেসে বললেন আপনি ছবি তুলেছেন কেন! আমি বললাম, বই লেখেন এমন মানুষকে দেখার জন্য তাঁর সাথে ছবি তোলার জন্য যে এত মানুষের ভিড় হতে পারে আপনাদের দুই ভাইকে না দেখলে বিশ্বাস করতাম না। তিনি বললেন, এরাই তো আমাকে লেখক বানিয়েছে। দ্রুত সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে, আপনার পাঠকদের মাঝে, আপনার ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে ফিরে আসুন জাফর ভাই। বাংলাদেশ আপনাকে ভালোবাসে। জঙ্গি সন্ত্রাসের জন্য বাংলাদেশ নয়। বাংলাদেশ আপনার, আমার, আমাদের। আমাদের ধমনীত শহীদের রক্ত এই রক্ত কোনোদিন পরাজয় মানে না।

সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম শান্ত লিখেছেন, অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবালের মাথায় ছুড়িকাঘাত করা হয়েছে। এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাই। প্রচুর রক্তক্ষরণে জাফর ইকবাল স্যারের রক্তের প্রয়োজন। তার রক্তের গ্রুপ এ পজেটিভ।

ফাতেমা ইয়াসমিন লিখেছেন, এই ঘটনার তিব্র নিন্দা জানাই…..ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল-এর মতো ভালো মানুষ বাংলাদেশে কমই আছে……দোয়া করি তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন…..জনপ্রিয় লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলা, রক্তাক্ত অবস্থায় নেওয়া হচ্ছে।

গোলাম কিবরিয়া পিনু লিখেছেন, সিলেটে অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর ছুরিকাঘাতে হামলা! জরুরি উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টার পাঠিয়ে ঢাকায় আনা হোক।

জয়নাল আবেদীন নামে একজন লিখেছেন, ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল স্যারকে খুন করার এত ইচ্ছে কেন এদের? এখন পর্যন্ত অনেকবার সেই অপচেষ্টা হয়ে গেছে। আপনার কাউকে ভালো লাগতে পারে, কিংবা মন্দ লাগাটাও অস্বাভাবিক নয়। তাই বলে তাকে খুন করে ফেলতে হবে?

হাসানুর রহমান হাসু লিখেছেন, সিলেট শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের মুক্তমঞ্চে রোবট প্রদর্শনী চলার সময় ডঃ জাফর ইকবালের উপর সন্ত্রাসী হামলা । আহতবস্থায় ওসমানী মেডিকেলে ভর্তি । সন্দেহভাজন আটক। ধিক্কার জানাই এমন বর্বরোচিত হামলার…।

বিজন কুমার গুহ লিখেছেন, নতুন প্রজন্মের লক্ষ কোটি শিশু, কিশোর ,যুবা যখন বিজ্ঞানমনস্কতায় শ্রদ্ধেয় ডঃ জাফর ইকবালের নিখাঁদ ভক্ত আর অনুসারী তখন তাঁর ওপর এমন হামলা কোন সমাজের চিত্র নিয়ে আসে চোখের সামনে??? তীব্র প্রতিবাদ , ঘৃণা আর ধীক্কার …অবিলম্বে নেপথ্যের সব হত্যাচেষ্টাকারীর মুখোশ উন্মোচন আর বিচার দাবি করছি।

আমজাদ দোলন নামে একজন লিখেছেন, দেশ বরেণ্য শিক্ষাবিদ-সাহিত্যিক ড: মুহম্মদ জাফর ইকবালের উপর হামলা করা হয়োছে, আজ বিকেলে তারই বিশ্ব বিদ্যালয়ে একটি অনুষ্ঠান চলাকালীন সময়ে তাঁকে পেছন থেকে মাথার পেছনের দিকে ছুরিকাঘাত করা হয়, আহত অবস্থায় তাঁকে সিলেট ওসমানী মোডিকেল হসপিটালে নেওয়া হয়েছে….। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই, হামলার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। ন্যায়পরায়ণ সত্যবাদী সবসময়ের প্রতিবাদী কন্ঠ। দেশ বরেণ্য এই ব্যক্তিত্বের উপর বারবার হামলা হচ্ছে…নিন্দা নিন্দা-প্রতিবাদ প্রতিবাদ…..।

জাফর ইকবালকে ছুরিকাঘাত

ড. জাফর ইকবাল ওপর হামলার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে শিক্ষাবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক প্রতিচ্ছবিকে বলেন, ‘ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলার কারণ তো বোঝায় যায়। যারা স্বাধীনভাবে তাদের মতামত প্রকাশ করে তদের শত্রু তো বেশিই থাকে। যারা অন্যা্য় করে অপরাধ করে তারাতো এমন সত্যকে ভয় পায়।’ তিনি অারো বলেন, ‘যারা স্বাধীনভাবে মতামত প্রকাশ করে তাদের ওপর এর অাগের হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অামরা উদ্বিগ্ন। অামরা দূত তার অারোগ্য কামনা করি। সেই সাথে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায়।’

উল্লেখ্য, শনিবার (৩ মার্চ) বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের উপর হামলা চালায় বিশ্ববিদ্যালয়েরই এক শিক্ষার্থী। এসময় হামলাকারী তরুণকে আটক করে প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা।

ছুরিকাহত ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে তাৎক্ষণিকভাবে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মাথার পেছনে আঘাত পেয়েছেন ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল।

হাসপাতালে উপস্থিত শাবিপ্রবি’র কোষাধ্যক্ষ জানিয়েছেন, আঘাত খুব একটা গুরুতর নয়। তবে, প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে।

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

Leave a Reply

উপরে