আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > বিনোদন-সংস্কৃতি > আজান নিয়ে সনুর বিতর্কিত মন্তব্যে জাভেদ আখতারের সায়

আজান নিয়ে সনুর বিতর্কিত মন্তব্যে জাভেদ আখতারের সায়

জাভেদ আখতার ও সোনু নিগাম

প্রতিচ্ছবি বিনোদন ডেস্ক:

মসজিদে লাউডস্পিকারে আজানের শব্দ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন বলিউডের গীতিকার ও লেখক জাভেদ আখতার। তার ভাষ্য মসজিদসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে লাউডস্পিকার নিষিদ্ধ করা হোক। এরআগে এমন মন্তব্য করে বিতর্কের ঝড় তুলেছিলেন ভারতীয় সঙ্গীত তারকা সোনু নিগাম।

এবার একইরকম মন্তব্য করেছেন বলিউডের গীতিকার ও লেখক জাভেদ আখতারও। মুসলমান হয়েও আজানের শব্দে আপত্তি নিয়ে জাভেদ নিজের মতামত ব্যক্ত করেন টুইটারে। শুধু তাই নয় তিনি সোনু নিগামকে সমর্থনের কথাও জানিয়েছেন। বিতর্কের সময়েও সনুর পাশে দাড়িয়েছিলেন তিনি।

এই প্রসঙ্গে গতকাল রাতে (৭ ফেব্রুয়ারি) একটি টুইট করেন জাভেদ আখতার। বলেন, ‘আমি সম্পূর্ণভাবে সনু নিগামকে সমর্থন জানাই।

তিনি আরো বলেন, ‘লাউডস্পিকার বাজিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সমস্যায় ফেলার কোনও মানেই হয় না। মসজিদে লাউডস্পিকার ব্যবহার উচিত নয়। আবাসিক এলাকা প্রার্থনার জন্য নয়।’

জাভেদ আখতারের এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে সরগরম হয়ে উঠেছে টুইটার।

গত বছর এপ্রিলের দিকে গায়ক সোনু নিগমের একটা টুইটকে ঘিরে ব্যাপক আলোচনা তৈরি হয়। আজানের আওয়াজে কাকভোরে ঘুম ভেঙে যাওয়া নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করে টুইট করেন সোনু। মসজিদসহ, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে লাউডস্পিকার বাজানো নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

সেই টুইট ঘিরে উত্তাল হয়ে ওঠে পুরো ভারত। একাধিক ধর্মীয় সংগঠন সোনু নিগমের বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করে একজন ধর্মীয় নেতা ঘোষণা দেন, সোনু নিগমের মাথা কামিয়ে তাকে জুতোর মালা পরালে ১০ লাখ টাকা পুরস্কার দেয়া হবে।

এর পাল্টা জবাব দেন সোনু নিগম। সাংবাদিক বৈঠক ডেকে নিজেই নিজের মাথা কামিয়ে ফেলেন। মজা করে বলেন, যে নাপিত তার মাথার চুল কেটেছেন তাকে যেন ১০ লাখ টাকা দিয়ে দেয়া হয়।

এ এম / এম এম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে