আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > মন্ত্রিসভায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া, বিলুপ্ত হচ্ছে ৫৭ ধারা

মন্ত্রিসভায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া, বিলুপ্ত হচ্ছে ৫৭ ধারা

মন্ত্রিসভায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া, বিলুপ্ত হচ্ছে ৫৭ ধারা

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

সমালোচনার মুখে বিলুপ্ত করা হচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের বিতর্কিত ৫৭ ধারা। তবে বিতর্কিত ওই ধারার অপরাধগুলো ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন’–এর খসড়ায় ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে রাখা হয়েছে। প্রস্তাবিত আইনে চারটি ধারায় ৫৭ ধারার অপরাধগুলো ভাগ করে রাখা হয়েছে।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে’র খসড়া ওঠার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। দীর্ঘদিন ধরেই আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় সাংবাদিকসহ অসংখ্য মানুষ হয়রানির শিকার হয়েছেন। এ জন্য ধারাটি বাতিলের দাবি ওঠে।

আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি ইচ্ছাকৃতভাবে ওয়েবসাইটে বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন, যা মিথ্যা ও অশ্লীল বা সংশ্লিষ্ট অবস্থা বিবেচনায় কেউ পড়লে, দেখলে বা শুনলে নীতিভ্রষ্ট বা অসৎ হতে উদ্বুদ্ধ হতে পারেন অথবা যার দ্বারা মানহানি ঘটে, আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটে বা ঘটার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়, রাষ্ট্র ও ব্যক্তির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে বা করতে পারে বা এ ধরনের তথ্যাদির মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা সংগঠনের বিরুদ্ধে উসকানি প্রদান করা হয়, তাহলে এ কাজ অপরাধ বলে গণ্য হবে। এই অপরাধে সর্বোচ্চ ১৪ বছর ও সর্বনিম্ন ৭ বছর কারাদণ্ড এবং সর্বোচ্চ এক কোটি টাকা অর্থদণ্ড দেওয়ার বিধান আছে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়ায় ২৫, ২৮, ২৯ এবং ৩১ ধারায় ওই অপরাধের বিষয়গুলো ভাগ করে রাখা হয়েছে। এসব ধারায় মানহানি, মিথ্যা ও অশ্লীল, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত এবং শত্রুতা সৃষ্টি ও আইনশৃঙ্খলার অবনতিসংক্রান্ত অপরাধগুলো রয়েছে। এতে অপরাধের ধরণ অনুযায়ী শাস্তির মাত্রা কমানো হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, আইন মন্ত্রণালয় এবং তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রস্তাবিত ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে’ খসড়ায় বলা হয়েছে, এই আইন কার্যকর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আইসিটি আইনের ৫৪, ৫৫, ৫৬, ৫৭ ও ৬৬ ধারা বিলুপ্ত হবে।

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে