আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > কষ্টার্জিত জয়ে টিকে রইলো শ্রীলঙ্কা

কষ্টার্জিত জয়ে টিকে রইলো শ্রীলঙ্কা

হাতুরুর চেনা মাঠে লঙ্কানদের কষ্টার্জিত জয়

প্রতিচ্ছবি ক্রীড়া প্রতিবেদক:

ত্রিদেশীয় সিরিজের টানা দুই ম্যাচ হেরে ফাইনালে খেলা কঠিন করে ফেলেছিল চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কা। অবশেষে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে এসে বছরের প্রথম জয়ের দেখা পেলো হাথুরুর শিষ্যরা।

মিরপুর শেরেবাংলায় জিম্বাবুয়েকে ৫ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে খেলার আশাটুক বাঁচিয়ে রাখার সঙ্গে নিয়েছে আগের হারের প্রতিশোধটাও। আগামী ২৫ জানুয়ারি স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে জয় পেলে ত্রিদেশীয় সিরিজে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত হবে লঙ্কানদের।

image-65859

রোববার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নামে জিম্বাবুয়ে। পেরেরা ও প্রদীপের বোলিং তোপে ৪৪ ওভারে ১৯৮ রানে অলআউট হয়ে যায় জিম্বাবুয়ে।

জবাবে ১৯৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও ব্যক্তিগত ১৭ রানে চাতারার বলে বোল্ড হয়ে সাঝঘরে ফেরেন থারাঙ্গা। এরপর ব্যক্তিগত ৪৯ রানে কুশাল পেরেরা, ৩৬ রানে মেন্ডিস ও ব্যক্তিগত ৭ রানে সাঝঘরে ফেরেন ডিকভেলা। জিম্বাবুয়ের হয়ে তিনটি উইকেট পেয়েছেন মুজারাবানি।

এরপর ৯ রান করে সাঝঘরে ফেরেন গুণারত্নে। অন্যদিকে চান্দিমাল ৩৮ রানে ও পেরেরা ৩৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। এর ফলে ৪৪.৫ ওভারেই জয়ের লক্ষ্যে পোঁছে যায় শ্রীলঙ্কা। ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের প্রথম জয় পেল হাথুরুবাহিনী।

এর আগে দিনের শুরুতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক। তবে লঙ্কানদের বোলিং দাপটে পুরোপুরি এলোমেলো হয়ে যায় গ্রায়েম ক্রেমারের দল। শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে দলকে সুন্দর সূচনা এনে দেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও সুলেমান মীরে। উদ্বোধনী জুটি এ দুজন প্রথম ১০ ওভারেই তুলেন ৪৪ রান। এরপরই ধাক্কা খায় জিম্বাবুয়ে। পেরেরার বলে থারাঙ্গার হাতে আউট হয়ে ফেরত যান মাসাকাদজা (২০)। মাসাকাদজার আউটের ৫ রান পরই আবারো আঘাত হানেন পেরেরা। এবার ব্যাটসম্যান ক্রেইগ অরভিন। দলীয় ৪৯ রানে থারাঙ্গার হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নের হাত ধরেন অরভিন (২)।

image-8018-1516172694

জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটে দলীয় ৫৬ রানে। এবারও বোলার পেরেরা। এবার আউট হন আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মীরে। উইকেটের পেছনে ডিকাভেলার হাতে ক্যাচ দিয়ে পেরেরার তৃতীয় শিকারে পরিণত হন মীরে (২১)। এরপর দলীয় ৭৩ রানে সিকান্দার রাজা (৯) সানদাকানের বলে আউট হলে রানের চাকা আস্তে আস্তে স্লথ হতে থাকে।

পঞ্চম উইকেট জুটিতে দলের হাল ধরেন টেলর ও ওয়েলার। এ দুজন দলকে ১৩৯ রান পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান। এরপর আবার জিম্বাবুয়ে শিবিরে ছন্দপতন। ওয়েলার (২৪) করে সানদাকানের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। এরপর মুর কোন বল ফেস না করেই রান আউটের শিকার হন।

টেইলর দলীয় ১৭১ রানে সপ্তম উইকেট হিসেবে আউট হন। এর আগে তিনি ৮০ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৫৮ রানের ইনিংস উপহার দেন। শেষদিকে অধিনায়ক ক্রেমারের ৪২ বলে ৩টি চারের সাহায্যে ৩৪ রান দলকে ১৯৯ রানে পৌছাতে সাহায্য করে।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে থিসারা পেরেরা ৪টি, নুয়ান প্রদীপ ৩টি ও সানদাকান ২টি উইকেট লাভ করেন।

এসএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে