আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আইন-মানবাধিকার > জুয়া ঠেকাতে বিসিবি’র মোবাইল কোর্ট

জুয়া ঠেকাতে বিসিবি’র মোবাইল কোর্ট

তিন জাতি ও শ্রীলঙ্কা সিরিজে জুয়া ঠেকাতে বিসিবি’র মোবাইল কোর্ট

প্রতিচ্ছবি ক্রীড়া প্রতিবেদক:

বিপিএল, আন্তর্জাতিক সিরিজ ও টুর্নামেন্টগুলোতে যেভাবে জুয়া ছড়িয়ে পড়েছে সেটি মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি)। তাই ক্রিকেটে জুয়া নিয়ে নড়েচড়ে বসেছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থাটি।

সদ্য সমাপ্ত বিপিএল চলাকালীন মাঠ থেকেই দেশি বিদেশি ৭২ জুয়াড়িকে আটক করেছে বিসিবির দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকু)। কিন্তু জুয়া নিয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো আইন না থাকায় তাদের শাস্তির আওতায় আনা সম্ভব হয়নি।

এবার জুয়াড়িদের আইনের আওতায় আনার ব্যবস্থা চূড়ান্ত করা হয়েছে। আসন্ন তিন জাতি ও শ্রীলঙ্কা সিরিজ শুরুর আগে আন্তমন্ত্রনালয়ের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, দুই সিরিজেই ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট ভেন্যুতে মোবাইল কোর্ট বসিয়ে জুয়াড়িদের জেল কিংবা জরিমানা করা হবে।

রোববার (৭ জানুয়ারি) শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে একথা বলেন বিসিবির সিইও নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন।

সুজন বলেন, ‘সিরিজ নিয়ে আমরা ইতোমধ্যেই কিছু বাড়তি ব্যবস্থা নিয়েছি। প্রশাসনিক বিষয়গুলো সম্পন্ন করা হয়েছে। একটি আন্তমন্ত্রনালয় সভা হয়ে গেছে। নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়গুলোর জন্য যারা দায়িত্বে থাকেন, বাংলাদেশ পুলিশ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ, ইতোমধ্যেই তারা সমন্বয় সভাগুলো করে নিয়েছে। প্রতিটি ভেন্যুতে বিশেষ করে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটের প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। তারা প্রতিটি ভেন্যুতে মেজিস্ট্রেসি পাওয়ার মোতায়েন করবে। তাৎক্ষণিকভাবে মোবাইল কোর্ট বসানোর একটি পরিকল্পনাও সরকারের রয়েছে এবং সেব্যাপারের একটি নির্দেশনাও ইতোমধ্যে দেয়া হয়েছে। ডিএমপির সাথে আমাদের সভাশেষে মাননীয় কমিশনার তার সংশ্লিষ্ট পুলিশ প্রশাসনকে এই কার্যক্রমে সহযোগিতা করতে নির্দেশনা প্রদান করেছেন।’

বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কার অংশগ্রহনে আগামী ১৫ জানুয়ারি শের-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে তিন জাতির টুর্নামেন্ট-ট্রাইনেশন। যা শেষ হবে ২৭ জানুয়ারি।

এরপর ৩১ জানুয়ারি থেকে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে গড়াবে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট। চলবে ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

প্রথম টেস্ট শেষে ৫ ফেব্রুয়ারি দুই দলই ঢাকায় ফিরবে। ৬ ও ৭ ফেব্রুয়ারি অনুশীলন শেষে ৮-১২ ফেব্রুয়ারি মিরপুরে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে মুখোমুখি হবে দু’দল। একই ভেন্যুতে ১৫ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি। পরদিন দুই দল চলে যাবে সিলেট। ১৭ ফেব্রুয়ারি অনুশীলন শেষে ১৮ ফেব্রুয়ারি সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টির মধ্য দিয়ে সিরিজের সমাপ্তি ঘটবে।

এ আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে