আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > কেন সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন মে !

কেন সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন মে !

কেন সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন মে !

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

ব্রিটেনের মধ্যবর্তী জাতীয় নির্বাচনে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র কনজারভেটিভ পার্টি শীর্ষে থাকলেও পার্লামেন্টে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে। দলটির জন্য এ ফল অপ্রত্যাশিত। এ জন্য বিশেষজ্ঞরা অনেকেই বেশ কিছু কারণকে দায়ী করছেন। যার মূলে স্বয়ং থেরেসা মে।

‘ব্রেন্ডা ফ্যাক্টর

গত বছর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর থেরেসা মে একাধিকবার বলেছেন, তিনি নতুন করে আর নির্বাচন দেবেন না। এরপরও হঠাৎ করেই তাঁর নির্বাচন আহ্বান ভালো ভাবে নেননি অনেকে। মে আকস্মিকভাবে নির্বাচন ঘোষণা করায় ব্রেন্ডা নামে এক নারী আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসিকে বলেছিলেন, ‘হায় ঈশ্বর! আর ভোট না, সহ্য করতে পারছি না।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে শেয়ার হয় ভিডিওটি। বলা হয়, ব্রিটিশ নাগরিকদের অনেকের মনোভাবই ছিল ব্রেন্ডার মতো।

প্রবীণ বিরোধী নীতি

‘প্রবীণ বিরোধী’ নীতির কারণেও নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টি ধাক্কা খেয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। দলটির নির্বাচনী ইশতেহারে প্রস্তাব করা হয়েছিল, যে দুর্বল বা অসুস্থ প্রবীণেরা নিজ বাড়িতে থেকে সেবা নেন, তাঁদের মৃত্যুর পর বাড়ির মূল্যের প্রথম এক লাখ পাউন্ডের পর থেকে রাষ্ট্র সেবার খরচ কেটে নিতে পারবে। প্রবীণদের সেবার ওপর এই কঠিন নীতি বেশ অজনপ্রিয় হয়।

সন্ত্রাসী হামলা

ম্যানচেস্টার ও লন্ডনে পরপর সন্ত্রাসী হামলার পর থেরেসা মের অবস্থান কিছুটা নড়বড়ে হয়ে পড়ে। বিরোধী নেতা জেরেমি করবিন জনগণকে মনে করিয়ে দিতে ভুল করেননি, থেরেসা মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকার সময়ই পুলিশের জন্য বরাদ্দ কমেছে।

বিতর্ক প্রত্যাখ্যান

থেরেসা মের টেলিভিশন বিতর্কের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানও এবারের নির্বাচনে তাঁর দলের জন্য নেতিবাচক ভূমিকা পালন করে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি বলেছিলেন, ‘রাজনীতিবিদদের নিজেদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদের চেয়ে’ তিনি ‘ভোটারদের কাছে যেতেই’ বেশি পছন্দ করেন।

‘মেবট’ কায়দা

আদর্শবাদী জেরেমি করবিনের বিপরীতে থেরেসা মে নিজেকে করিতকর্মা ইংরেজ-নারী হিসেবে উপস্থাপন করতে চেয়েছিলেন। এ কারণে তাঁর ডাকনামই হয়ে যায় ‘মেবট’। অন্যদিকে বর্ষীয়ান করবিন নিজেকে এমনভাবে উপস্থাপন করেছেন যেন, মানুষের সঙ্গে মিশতে তিনি ভালোবাসেন।

তথ্যসূত্র: বিবিসি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে