আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অর্থ-বাণিজ্য > উৎসবের মৌসুমে মসলার বাজারে অস্থিরতা

উৎসবের মৌসুমে মসলার বাজারে অস্থিরতা

মসলার বাজার [১]

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বেড়ে যাওয়ায় রাজধানীর বাজারগুলোতে বেড়েছে বিভিন্ন ধরণের মসলার দাম। জিরা, এলাচি, কিশমিশ, পোস্ত দানা ও পেস্তার দাম বেড়েছে। পাশাপাশি বেড়েছে মুরগির মাংস এবং ডিমের দামও।

শুক্রবার রাজধানীর কাওরান বাজার, রজনীগন্ধা সুপারমার্কেটসহ বিভিন্ন পাইকারী ও খুচরা বাজার ঘুরে মসলার দামের এ তথ্য জানা গেছে। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে মাসখানেক আগে, যার প্রভাব এখন খুচরা বাজারে পড়েছে।

এছাড়া শীতকালে বিয়ে, বনভোজনসহ বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান বেড়ে যাওয়ায় মসলার চাহিদা বেড়েছে।

খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, বাজারে দুই ধরনের জিরার দাম কেজিপ্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা বেড়েছে। প্রতি কেজি জিরা ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। জিরার পাশাপাশি এলাচির দাম বেড়েছে কেজিতে ২০০ টাকা। মাঝারি মানের এলাচি প্রতি কেজি ১ হাজার ৪০০ টাকা। এছাড়া, কিশমিশ ৩৬০ টাকা।

রজনীগন্ধা সুপার মার্কেটের বিক্রেতা রুহুল আমিন বলেন, দারুচিনি ৩০০ টাকা ও লবঙ্গ ১ হাজার ১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। পোস্ত দানার দর কেজিতে প্রায় ৫০০ টাকা বেড়ে ১ হাজার ৩০০ টাকা, পেস্তা ১ হাজার টাকা থেকে বেড়ে ২ হাজার ৬০০ টাকায় উঠেছে।

মসলার বাজার [২]

নভেম্বর ও ডিসেম্বরে ভারতে বিভিন্ন মসলার দাম বেড়েছে। এটাই দেশের বাজারে দর বাড়ার কারণ বলে দাবি করেন পুরান ঢাকার মৌলভীবাজারের পাইকারি মসলা ব্যবসায়ী সমিতির মো. এনায়েতুল্লাহ।

এদিকে, মসলার পাশাপাশি দাম বেড়েছে বিভিন্ন ধরণের মুরগির। সোনালিকা মুরগির দাম ২০ টাকা বেড়ে ২০০ থেকে ২২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অন্যদিকে ব্রয়লার মুরগি প্রতি কেজি ১৩৫-১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি ডজন ফার্মের লাল ডিম ৭০-৭৫ টাকা থেকে দাম বেড়ে ৮৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে পেঁয়াজের দর কিছুটা কমেছে। খুচরা বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ নেমেছে ৭০ টাকা কেজিতে। যা কিছুদিন আগেও ৮০ টাকা ছিল। দেশি বড় পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৯০ টাকা ও ছোট পেঁয়াজ ৮০ টাকা দরে পাওয়া যাচ্ছে।

আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে