আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > জাতীয় > ‘নোয়াখালী খাল আর নোয়াখালীর দুঃখ হয়ে থাকবে না’

‘নোয়াখালী খাল আর নোয়াখালীর দুঃখ হয়ে থাকবে না’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রতিচ্ছবি নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর মানুষকে দীর্ঘদিনের জলাবদ্ধতার সঙ্কট থেকে মুক্তি দিতে নোয়াখালী খাল সংস্কার ও পুনঃখনন প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (০৪ জানুয়ারি) সকালে প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন , “হোয়াংহো আর চীনের দুঃখ নাই। আমি চাই নোয়াখালী খালও আর নোয়াখালীর দুঃখ হয়ে থাকবে না।”

৩২৪ কোটি৯৮ লাখ টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্পের আওতায় জলাবদ্ধতা নিরসন, বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থা উন্নয়নে নোয়াখালী খাল এবং জেলার ২৩টি খালের পুনঃখনন করা হবে। সেই সঙ্গে ১৬০ বর্গ কিলোমিটার এলাকার পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, নোয়াখালীর উপকূলীয় এলাকায় বাঁধ নির্মাণ করা হবে। এসব প্রকল্পের উন্নয়নের পাশাপাশি মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নও হবে। বাস্তবায়ন করা হবে নদী ড্রেজিংসহ খাল খনন কর্মসূচি। ‘২০২১ সালে এসব প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে। তবে এর আগেই আমরা প্রকল্পটি বাস্তবায়নের চেষ্টা করবো।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে যাদের জমি অধিগ্রহণ করা হবে তাদের তিনগুণ অর্থ পরিশোধ করা হবে। পাশাপাশি এলাকায় কর্মসংস্থানেরও সুযোগ হবে।

এ সময় বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী।

নোয়াখালীর জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন বিগ্রেড। প্রকল্পের আওতায় খাল পুনঃখনন, ডাইভারসন, ড্রেজিং, ক্লোজার ও বাঁধ নির্মাণ এবং রেগুলেটর স্থাপন করা হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, নতুন পানিসম্পদ মন্ত্রী  আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। স্বাগত বক্তব্য দেন সেনাবাহিনী প্রধান আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান।

আর এইচ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে