আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > ভাষা আন্দোলনে উত্তপ্ত দার্জিলিং

ভাষা আন্দোলনে উত্তপ্ত দার্জিলিং

ভাষা আন্দোলনে উত্তপ্ত দার্জিলিং

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

ভারতের নয়নাভিরাম পার্বত্যভূমি দার্জিলিংয়ে ‘গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা’ সমর্থকদের এক বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে গত বৃহস্পতিবার চরম সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। ওই সময় সেখানে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির উপস্থিতিতে রাজ্য মন্ত্রীসভার এক বৈঠক চলছিল।

গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার বিক্ষুব্ধ কর্মীরা সে সময় বেশ কয়েকটি সরকারি ও পুলিশের গাড়ি জ্বালিয়ে দেয়। তাদের ইটপাটকেলের আঘাতে পুলিশের ৫২ জন কর্মী আহত হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠি চার্জ ও প্রচুর কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সন্ধ্যায় সেনাবাহিনী নামানো হয়।

প্রায় ৪৫ বছর পরে দার্জিলিংয়ে রাজ্য মন্ত্রীসভার ঐ বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছিলো। গোটা পশ্চিমবঙ্গের স্কুলগুলিতে বাংলা ভাষা পড়াতে হবে বলে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মমতা ব্যানার্জি। এর বিরুদ্ধে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা কিছুদিন ধরেই ক্ষোভ জানাচ্ছিল।

বৃহস্পতিবারও মন্ত্রীসভার বৈঠক চলাকালীনই গোর্খাদের একটা অবস্থান বিক্ষোভ চলছিল।

যদিও সরকার এটা নির্দিষ্ট করে বলেছে যে পাহাড়ের ক্ষেত্রে বাংলা ঐচ্ছিক বিষয় থাকবে, তবুও সেই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই পাহাড় উত্তপ্ত হয়ে উঠছিল কিছুদিন থেকে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার ওই বিক্ষোভ শেষ হয়ে যাওয়ার পরে হঠাৎই পুলিশের দিকে পাথর ছোঁড়া শুরু হয়।

গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা নেতৃত্ব জানিয়েছে, তাদের বদনাম করার জন্য কেউ পাথর ছুঁড়েছে পুলিশের দিকে, তাদের কোনও কর্মী সমর্থক ওই কাজ করেন নি। শুক্রবার ১২ ঘণ্টার পাহাড় বন্ধের ডাক দিয়েছে জনমুক্তি মোর্চা। ওই সহিংসতায় উত্তরবঙ্গ ও দার্জিলিং পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাসহ ৫২ জন পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন। গ্রেপ্তার করা হয়েছে বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে। সূত্র টাইমস অব ইন্ডিয়া ও বিবিসি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে