আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > ২০১৭: সাফল্যের পাশাপাশি হতাশার মাঝে নারী ফুটবলের জাগরণ

২০১৭: সাফল্যের পাশাপাশি হতাশার মাঝে নারী ফুটবলের জাগরণ

২০১৭: সাফল্যের পাশাপাশি হতাশার মাঝে নারী ফুটবলের জাগরণ

আহমেদ এফ রুমী:

দেশের ক্রিড়াঙ্গনে সাফল্যের আনন্দের মাঝে ছিলো ব্যর্থতার হতাশা। ক্রিকেটে বছরের শুরুর দিকটা দারুন কাটলেও শেষটা ছিলো চরম হতাশার। দিন দিন ছেলেদের ফুটবল পেছালেও জাগরণ ঘটে গেছে নারী ফুটবলে। ভারতকে হারিয়ে সাফ অনুর্ধ্ব-১৫ ফুটবলের শিরোপা ঘরে তুলে বাংলাদেশকে খুশির জোয়ারে ভাসিয়েছে মারিয়া-তহুরা-শামসুন্নাহাররা। মাঠের বাইরেও ঘটে গেছে বেশ কিছু ঘটনা। টি-টোয়েন্টি থেকে হঠাৎই মাশরাফির অবসর চমকে দিয়েছে ভক্তদের। না বলে কয়ে কোচ হাতুরু সিংহের বিদায়ও ছিলো আলোচিত।

জুনে ইংল্যান্ডে আয়োজিত চ্যম্পিয়ন্স ট্রফিতে সাকিব-তামিমদের দারুন পারফরম্যান্সে সেমিফাইনাল খেলে বাংলাদেশ। দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে এটি এখন পর্যন্ত সবচে বড় অর্জন। গ্রুপ পর্বে অস্ট্রেলিয়ার সাথে ম্যাচে ফলাফল না হলেও সাকিবের দৃর্দান্ত সেঞ্চুরিতে নিউজিল্যান্ডকে বাংলাদেশ হারায় ৫ উইকেটে। সেমি ফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ। তবে সেমিতে হারতে হয় ভারতের কাছে।

টেস্টের কুলীন দল অস্ট্রেলিয়াকে দেশের মাটিতে হারায় মুশফিকরা। আগস্টে মিরপুরে প্রথম টেস্টে ২০ রানে হারিয়ে স্মিথদের দর্প চূর্ণ করে টাইগাররা। সাকিবের ঘূর্ণি জাদুতে আত্মসমর্পণ করে অজি ব্যাটসম্যানরা।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শততম টেস্ট জিতে রেকর্ড বইয়ের পাতায় নাম লেখায় বাংলাদেশ।সফরের প্রথম টেস্ট হারলেও দ্বিতীয় টেস্টটি ছিলো শততম। তাই জেতার জন্য সবটুকু দিয়ে মাঠে নামে সাকিব-তামিমরা। কলম্বোর পি সারা ওভালে সিনিয়রদের পাশাপাশি জ্বলে ওঠেন সাব্বির-সেৌম্যরাও।প্রথম ইনিংসে সাকিবের সেঞ্চুরিতে ৪৬৭ রান তোলে টাইগারা। শ্রীলঙ্কা করে ৩৩৮। আর দ্বিতীয় ইনিংসে করে ৩১৯। ৪ উইকেট হাতে রেখেই ১৯১ রানের টার্গেট ছুঁয়ে ফেলে টাইগাররা। এর আগে শততম টেস্ট জিতেছিলো অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্টইন্ডিজ ও পাকিস্তান। এ সফরের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজও ড্র করে বাংলাদেশ।

তবে বছরের শেষ দিকটা খুবই খারাপ কেটেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বাজেভাবে হারতে হয়েছে টাইগারদের। ব্যাটে বলে জ্বলে উঠতে পারেনি কেউই। একমাত্র টি-টোয়েন্টি সিরিজে কিছুটা লড়াই করে হেরেছিলো বাংলাদেশ।

মাঠের বাইরেও ছিলো অনেক ঘটনা। শ্রীলঙ্কা সিরিজে টস করতে নেমেই হঠাৎই টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরের ঘোষণা দেন মাশরাফি। বাংলাদেশের ক্রিকেটে মাশরাফি একটা আবেগের নাম। তাঁর ওই সিদ্ধান্তটা আবেগী কি-না জানা নেই তবে কষ্ট পেয়েছিলেন ভক্তরা। এ নিয়ে বোর্ডের সমালোচনাও কম হয়নি। তবে বিপিএলে শুন্য থেকে শুরু করা জেদি মাশরাফি বুঝিয়ে দিয়েছেন ফুরিয়ে যাননি।

বিপিএলে এবারের আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মাশরাফির দল রংপুর রাইডার্স। মাশরাফির দারুন নেতৃত্বের সাথে গেইল ঝড়ে শিরোপা যায় রংপুরের ঘরে। এবারের আসরে নজর কেড়েছেন আবু জায়েদ, আরিফুল, জাকির ও আফিফ।

দক্ষিণ আফ্রিকায় দুঃস্বপ্নের সফর শেষে দলের সাথে আসেননি কোচ হুতুরু। পদত্যাগের নানা কানাঘুষার পর ই-মেইলে পদত্যাগ পত্র দেন বাংলাদেশের সবচে সফল কোচ। পরে অবশ্য ঢাকা এসে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের রিপোর্ট দিয়েছেন। সিনিয়র ক্রিকেটারদের সাথে তার সম্পর্কের অবণতির কথাও নাকি বলে গেছেন বিসিবির কাছ থেকে অবাধ ক্ষমতা পাওয়া এই লঙ্কান কোচ। পরে অবশ্য দায়িত্ব নিয়েছেন শ্রীলঙ্কা দলের।

রাদবদল হয়েছে অধিনায়কত্বে। মুশফিক হারিয়েছেন টেস্ট অধিনায়কত্ব। দায়িত্ব পেয়েছেন সাকিব আল হাসান। তার ডেপুটি হিসেবে থাকবেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। এ বছর দ্বিতীয় মেয়াদে বোর্ড প্রেসিডেন্ট হয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন।

ছেলেদের ফুটবলে শুধুই হতাশার চিত্র। র‌্যঙ্কিংয়ে পেছাতে পেছাতে এখন ২শ’র কাছে। তবে ছেলেরা যখন পেছাচ্ছে তখনই দেশে ঘটে গেছে নারী ফুটবলের জাগরণ। এই বিপ্লবটা শুরু ময়মনসিংহের কলসিন্দুর থেকে। বাংলাদেশের নারী ফুটবল দলের বেশিরভাগই কলসিন্দুর স্কুল থেকে উঠে আসা।

বছরের শেষে ভারতকে হারিয়ে অনুর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জেতে বাংলাদেশ। পুরো টুর্নামেন্টে কোনো ম্যাচতো হারেইনি এমনকি একটাও গোল হজম করেনি মারিয়ার দল। নারী ফুটবল নিয়ে অবশ্য ভাবতে শুরু করেছে ফুটবল ফেডারেশন। এশিয়ার সেরা তিনে যেতে পরিকল্পনা করেছেন বাফুফে সভাপতি। সাফ জয়ী দলের সাথে আরো ২৭ জন যোগ করে টানা ৩/৪ বছর প্রশিক্ষণের পরিকল্পনা তার। সেই সাথে নারী ফুটবল লিগ চালুর কথাও জানিয়েছেন তিনি।

এ বছর এশিয়া কাপ হকির জমকালো আয়োজন করলেও পারফরম্যান্সে তলানির দিকেই ছিলো বাংলাদেশ। জ্বলে উঠতে পারেননি জিমি-চয়নরা। এই ব্যর্থতার পেছনে খেলা না হওয়া এবং দুর্বল অবকাঠামোর কথাটাই বার বার সামনে চলে আসে।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও আছে মনে রাখার মতো অনেক ঘটনা। রাশিয়া বিশ্বকাপের দুঃখ ইতালি ও হল্যান্ড। বাছাই পর্ব থেকেই চোখের জলে বিদায় নিতে হয়েছে বুফনদের। পারেনি হল্যান্ডও। এ বিশ্বকাপ দেখবে না অ্যারিয়ন রোবেনদের টোটাল ফুটবল, দেখবে না ইতালির নান্দনিক রক্ষণাত্মক ফুটবল। তাদের বিদায়ে একটু হলেও কি রঙ হারাবে না রাশিয়া বিশ্বকাপ।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বৃহস্পতি এখন তুঙ্গে। ইউরোতে বাঘা বাঘা সব দলকে হারিয়ে শিরোপা জেতে রোনালদোর পর্তুগাল। আর বছরের শেষ দিকে তার হাতেই ওঠে ব্যালন ডি অর। পাঁচবার ব্যালন ডি অর জিতে ছুয়ে ফেলেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী লিওনেল মেসিকে।

কম চমক দেখাননি ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। নানা গুঞ্জনের পর রেকর্ড পারিশ্রমিকে বন্ধু মেসিকে ছেড়ে পাড়ি জমান ফরাসি ক্লাব পিএসজিতে।

এআর/ডিডিআর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে