আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > রোহিঙ্গা নারীদের মালয়েশিয়ায় পাচার করতে চেয়েছিল দুই দালাল: র‍্যাব

রোহিঙ্গা নারীদের মালয়েশিয়ায় পাচার করতে চেয়েছিল দুই দালাল: র‍্যাব

রোহিঙ্গা নারীদের মালয়েশিয়ায় পাচার করতে চেয়েছিল দুই দালাল: র‍্যাব

প্রতিচ্ছবি প্রতিবেদক:

রাজধানীর ডেমরা থেকে উদ্ধারকৃত দুই রোহিঙ্গা নারী ও শিশুকে মালয়েশিয়া পাঠাতে চেয়েছিলো দালাল রাজু ও তার সহযোগী মোখলেসুর রহমান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১০ এর কমান্ডিং অফিসার ডিআইজি মো. শাহাবুদ্দিন খান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাবাদে দালাল রাজু জানায় উদ্ধারকৃত সেতারা বেগম (২৫), জাহেদা বেগম (১৬) ও শিশু সফিকা (৬)। মালয়েশিয়া পাঠানোর জন্য ডেমরায় অপর দালাল মোখলেসুর রহমানের বাসায় আশ্রয় দিয়েছিলো।

ডিআইজি মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, চলতি বছরে ৩ সেপ্টেম্বর উদ্ধারকৃত নারীরা মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। বাংলাদেশে প্রবেশ করার আনুমানিক ৬ মাস আগে মোবাইল ফোনে জাহেদার স্বামী সলিমুল্লা’র সঙ্গে বিয়ে হয়। সেই থেকে জাহেদা বেগমের সঙ্গে সলিমুল্লার বোন সেতারা বসবাস করতেন।

বাংলাদেশে প্রবেশের পর প্রথমে তারা টেকনাফের এক অজ্ঞাত ব্যক্তির বাসায় আশ্রয় নেয়। পরে কক্সবাজারের কলাতলীতে বাসা ভাড়া নেয় এবং স্থানীয় এক হোটেলে সেতারা রান্নার কাজ শুরু করে।

দালাল রাজুর ভাতিজা রফিকুল ইসলাম গত তিন বছর ধরে জাহেদার স্বামীর সঙ্গে মালয়েশিয়া থাকেন। তার কথা মত দালাল রাজু সলিমুল্লার বোন সেতারা ও স্ত্রী জাহেদাকে মালয়েশিয়ায় পাঠানোর জন্য বালাদেশি পাসপোর্ট করতে ঢাকায় আসেন।

গ্রেফতারকৃত দালাল রাজু মোল্লাকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও মোখলেসুর রহমানকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী মেজিস্ট্রেট মো.গাউসুল আজম। এবং সেতারাও তার শিশু সফিকাকে বালুখালি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ও জাহেদা বেগমকে জামতলী ক্যাম্পে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে