আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > অপরাধ > ওয়াসার ৫ কোটি টাকার প্রকল্প এগুচ্ছে নিম্ন মানের পাইপ নিয়ে

ওয়াসার ৫ কোটি টাকার প্রকল্প এগুচ্ছে নিম্ন মানের পাইপ নিয়ে

ওয়াসার ৫ কোটি টাকার প্রকল্প এগুচ্ছে নিম্ন মানের পাইপ নিয়ে [১]

শেখ লিয়াকত হোসেন:

খুলনা ওয়াসায় ২০টি উৎপাদক নলকূপ স্থাপনের জন্য সোয়া ৫ কোটি টাকার নিম্ন মানের পাইপ ও ফিল্টার কেনার অভিযোগ উঠেছে। দরপত্রে (টেন্ডার) নির্দিষ্ট মানের মালামাল না দেয়ায় ওয়াসার বাতিল করা টেন্ডারটির আদেশ সরবরাহের নির্দেশ দেয় সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিট (সিপিটিইউ)। পুনঃদরপত্রের নির্দেশ না দিয়ে কারিমা কনসাইনমেন্টকে কার্যাদেশ দেয়ায় অভিযোগ উঠেছে প্রকল্প পরিচালক রেজাউল ইসলামের বিরুদ্ধে।ওয়াসার ৫ কোটি টাকার প্রকল্প এগুচ্ছে নিম্ন মানের পাইপ নিয়ে [২]

খুলনা ওয়াসার দায়িত্বশীল সূত্র এ সব তথ্য দিয়ে জানায়, নগরবাসীর পানির চাহিদা মেটাতে ওয়াসা অন্তর্বতীকালীন এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে নলকূপ বসানোর কাজ চলছে। এরইমধ্যে ৩টির কাজ শেষ হয়েছে।

এরইমধ্যে এসব নলকূপের জন্য ৫ কোটি ১১ লাখ টাকার মালামাল ক্রয় করা হয়েছে। যা সরবরাহ করেছে যশোরের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কারিমা কনসাইনমেন্ট। তারা ৬ ইঞ্চি জিআই পাইপ ৪ হাজার ২ শ’ মিটার, ১৬ ইঞ্চি হাউজিং (এমএস) পাইপ ১ হাজার ২ শ’ ২০ মিটার ও ৬ ইঞ্চি এসএস ফিল্টার  ৬ শ’ মিটার সরবরাহ করে। যার দাম জিআই পাইপ প্রতি মিটার ৫ হাজার ৯ শ’ টাকা হিসাবে ২ কোটি ৪৭ লাখ টাকা, হাউজিং পাইপ প্রতি মিটার ১২ হাজার ৭ শ’ ২৫ টাকা হিসাবে ১ কোটি ৫৫ লাখ টাকা ও ফিল্টার প্রতি মিটার সাড়ে ১১ হাজার টাকা হিসাবে ৬৯ লাখ টাকা বিল গ্রহণ করেছে।

ওয়াসার ৫ কোটি টাকার প্রকল্প এগুচ্ছে নিম্ন মানের পাইপ নিয়ে [৩]অনুসন্ধানে জানা যায়, টেন্ডারে কারিমা কনসাইনমেন্ট সর্বনিম্ন দরদাতা হলেও তারা যে নমুনা সরবরাহ করে তা টেন্ডারের নির্দিষ্ট গুণগত মানের না হওয়ায় ওয়াসা কর্তৃপক্ষ বাতিল করে পুনঃটেন্ডারের উদ্যোগ নেয়। এ সময় কারিমা কনসাইনমেন্ট সিপিটিইউ’র কাছে টেন্ডার বহাল রাখার আবেদন করে। সেখানে তারা মুচলেকা দেয় নির্দিষ্ট গুণগত মানের মাল সরবরাহ করবে।

এ প্রেক্ষিতে সিপিটিইউ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দেয়া যায় মর্মে ওয়াসাকে আদেশ দেয়। তবে এ বিষয়ে আপিল করার সুযোগ আছে বলে ওয়াসাকে জানায় সিপিটিইউ। কিন্তু আপিল না করে সরাসরি কার্যাদেশ দেয় ওয়াসা কর্তৃপক্ষ।

সরেজমিনে দেখা যায়, কার্যাদেশ পাওয়ার পর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান যে হাউজিং পাইপ সরবরাহ করেছে তা এপিআই (মার্কিন মানের) স্ট্যান্ডার্ট হওয়ার কথা; কিন্তু উৎপাদনকারী ভারতীয় উৎকর্ষ কোম্পানী ওই মানের মালই তৈরি করে না। সরবরাহকৃত ফিল্ডার পাইপ এসএস হওয়া সত্ত্বেও তার মুখের দিকে মরিচা ধরেছে। যা সুতির কাপর দিয়ে ঘষে উঠিয়ে ফেলা হচ্ছে এবং ওই পাইপের বডিতে উৎপাদনকারী ভারতীয় জনশন কোম্পানী খোদাই করা কোন লোগো দেখা যায়নি। প্রিন্ট করা একটি কাগজ পাইপের মুখে সাটা।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সরবরাহ করা পাইপের নমুনায় সমস্যা ছিল বলেই টেন্ডার বাতিল করা হয় বলে জানান, ওয়াসার ডিএমডি প্রকৌশলী কামাল উদ্দিন। তিনি প্রতিচ্ছবিকে বলেন, ‘আপিল করার যে সুযোগ ছিল তা কেন গ্রহণ করা হয়নি তা বলতে পারবো না।’

এই প্রকল্পের পরিচলাক রেজাউল ইসলাম জানান, নমুনা পর্যায়ে মালের গ্রণগত মানে কিছু ঘাটতি ছিল। কিন্তু সরবরাহকৃত মালামালে তা নেই। বুয়েটের টেস্ট করা মান সম্মত মালই আমরা সরবরাহ নিয়েছি। কোন ধরণের অনিয়ম হয়নি বলে দাবী করেন তিনি।

খুলনা প্রতিনিধি/ইএ/এমএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে