আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > জার্মানিতে ঘনীভূত হয়েছে রাজনৈতিক সংকট

জার্মানিতে ঘনীভূত হয়েছে রাজনৈতিক সংকট

জার্মানির চ্যান্সেলর এঙ্গেলা মার্কেল

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্টতা অর্জন না করায় নতুন করে জোট সরকার গঠন জরুরি ছিল জার্মান চ্যান্সেলর এঙ্গেলা মার্কেলের। মজবুত জোট সরকার গঠনের গুরুত্বপূর্ণ আলোচনায় ব্যর্থ হয়েছেন মার্কেল । ব্যর্থ এই আলোচনার পর  জার্মানীর রাজনৈতিক সংকট আরো ঘণীভূত হয়েছে।

চ্যান্সেলর হিসেবে তার ১২ বছরের অভিজ্ঞতায় সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি এখন মার্কেল। সংকট সমাধোনের একমাত্র উপায় দেশটিতে নতুন নির্বাচন।

মার্কেলের রক্ষণশীল সিডিইউ-সিএসইউ জোট এবং গ্রিন পার্টি র সঙ্গে জোট সরকার গঠন নিয়ে চার সপ্তাহের দীর্ঘ আলোচনার পর তা ভেস্তে যাওয়ার ঘোষণা দেন উদারপন্থি এফডিপি দলের নেতা ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনার। প্রতিটি দলের ভিন্ন মতাদর্শের কারণে চাওয়া-পাওয়ায় অসংগতির জন্য আলোচনা সফল হয়নি।

ফলে অর্থনৈতিকভাবে স্থিতিশীল এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইঞ্জিন বা চালিকাশক্তির দেশ জার্মানিতে সরকার গঠন এখন একেবারে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সরকার গঠনে এ ব্যর্থতায় চ্যান্সেলর হিসাবে ১২ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন মার্কেল। তার ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। দেশটিতে বর্তমানে কোনো টেকসই সরকার বিদ্যমান নেই।

বিগত নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় চ্যান্সেলর মার্কেলের টিকে থাকার জন্য কোয়ালিশন অপরিহার্য।

এফডিপি নেতা ক্রিশ্চিয়ান লিন্ডার বলেন, তাদের মধ্যে বিশ্বাসের কোনো ভিত্তিই নেই। আলোচনা ফলপ্রসূ না হওয়ার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন মার্কেল। সিডিউ ডেপুটি চেয়ারম্যান আর্মিন ল্যাশেট সাংবাদিকদের বলেন, সোমবার সকালে দলের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। এসময় দলের সবাই তাকে সমর্থন করেছেন।

প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক ওয়াল্টার স্টাইনমায়ার বলেছেন, জার্মানি একটা নজিরবিহীন পরিস্থিতি মোকাবেলা করছে। তবে তিনি সব দলের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাবেন।

জোট সরকারের আলোচনা ভেস্তে যাওয়ায় কেবল জার্মানরাই উদ্বিগ্ন নন, উদ্বেগ দেখা দিয়েছে প্রতিবেশী দেশগুলোতেও৷ কারণ এ সমস্যার সমাধান হতে কত সময় লাগবে তা কারও জানা নেই।

এন টি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:

অনুরূপ সংবাদ

উপরে