আপনি আছেন
প্রচ্ছদ > আন্তর্জাতিক > চাপের মুখেও ক্ষমতায় থাকবেন মুগাবে!

চাপের মুখেও ক্ষমতায় থাকবেন মুগাবে!

রবার্ট মুগাবে

প্রতিচ্ছবি ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:

ক্ষমতাসীন জানু-পিএফ পার্টি থেকে বহিস্কার করার পর অনেক চাপের মুখেও ক্ষমতায় থাকবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন জিম্বাবুয়ের গৃহবন্দি প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে।  পদত্যাগ না করে আগামী কয়েক সপ্তাহের জন্য ক্ষমতায় থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

জাতীর উদ্দেশে টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে, দল ও সেনাবাহিনীর চাপ অগ্রাহ্য করে পদত্যাগ করার ঘোষণা দেবার বদলে উল্টো আসন্ন কংগ্রেসে নিজের জানু-পিএফ পার্টিকে নেতৃত্ব দেবার আকাঙ্ক্ষার কথা জানিয়েছেন তিনি।

সরাসরি প্রচারিত ভাষণে তিনি বলেন, “আসছে ডিসেম্বরে তার পার্টির কংগ্রেসে তিনি সভাপতিত্ব করবেন। তিনি বলেন, এখন থেকে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে কংগ্রেসে আমি সভাপতিত্ব করবো। এটি অবশ্যই কারো দ্বারা পক্ষপাতদুষ্ট হওয়া উচিত নয়। জনগণের চোখে এর ফলাফলকে আপসের মত করে দেখানো ঠিক হবে না। ”

পদত্যাগে রাজি করাতে মুগাবের সঙ্গে গতকাল সাক্ষাৎ করেন সেনা অধিনায়করা। সরকারি মিডিয়াতে দেখা গেছে, কয়েকজন সিনিয়র জেনারেল এবং পুলিশ প্রধান হারারেতে প্রেসিডেন্টের বাসভবনে গিয়ে তার সঙ্গে করমর্দন করছেন। সাবেক মুক্তিযোদ্ধাদের এক নেতা হুঁশিয়ার করেছেন, মুগাবে পদত্যাগ না করলে রাস্তায় সহিংসতা শুরু হবে।

স্বাধীন হওয়ার পর গত ৩৭ বছর ধরে জিম্বাবুয়ে শাসন করছেন সাবেক এই গেরিলা নেতা। কিন্তু সম্প্রতি জানু-পিএফ পার্টির উত্তরসূরী নিয়ে দলের ভেতরে কোন্দল শুরু হয়।

এ মাসের শুরুর দিকে মুগাবে ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং দলীয় পদ থেকে এমারসন নানগাওয়াকে বহিষ্কার করেন। অথচ এই নানগাওয়াকে একসময় মুগাবের উত্তরসূরি বিবেচনা করা হত, তাকে বহিষ্কারের পর সে জায়গায় মুগাবের স্ত্রী গ্রেসের নাম চলে আসে।

এ নিয়ে দলীয় কোন্দলের মধ্যেই গত বুধবার সেনাবাহিনী জিম্বাবুয়ের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার কথা জানায় এবং মুগাবেকে গৃহবন্দি করে।

শুক্রবার সেনাবাহিনীর পাশাপাশি জানু-পিএফ পার্টির পক্ষ থেকেও জনগণের কাছে জনপ্রিয়তা হারানো এই নেতাকে পদত্যাগের আহ্বান জানানো হয়।

এন টি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন:
symphony

অনুরূপ সংবাদ

উপরে